ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২০ জুলাই ২০১৭

অন্যদিগন্ত

৪৭ দেশের ৮১ নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র

সিএনএন

১৭ জুলাই ২০১৭,সোমবার, ০০:০০ | আপডেট: ১৭ জুলাই ২০১৭,সোমবার, ০৬:৪২


প্রিন্ট
মার্কিন সরকার বিশ্বের ৪৭টি দেশের ৮১টি নির্বাচনে হস্তপে করেছে। নিজের স্বার্থে নির্বাচনের ফলাফল পরিবর্তন করার ল্েয ১৯৪৬ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত সময়ের মধ্যে এ সব হস্তপে করেছে ওয়াশিংটন। বেশ কিছুদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রের গত বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তপে নিয়ে ব্যাপক জল্পনা চলছে। এ অবস্থায় প্রশ্ন ওঠে, যুক্তরাষ্ট্র কি বিশ্বের কোনো দেশের নির্বাচনে হস্তপে করেনি?
যুক্তরাষ্ট্রের কার্নেগি মেলন বিশ্ববিদ্যালয়ের কৌশলগত নীতিবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ডাউ লুইন সামাজিক বিজ্ঞানের দৃষ্টিতে অন্য দেশের নির্বাচনে মার্কিন হস্তেেপর বিষয়টি বিশ্লেষণ করেছেন। তিনি সিএনএনকে বলেন, ১৯৪৬ সাল থেকে পরবর্তী ৫৪ বছরে মার্কিন সরকার বিশ্বের ৪৭টি দেশের নির্বাচনে হস্তপে করেছে। উদাহরণ হিসেবে ১৯৪৮ সালে ইতালিতে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে লুইন বলেন, ওই নির্বাচনে কমিউনিস্ট পার্টির বিজয়ের ব্যাপারে ওয়াশিংটন উদ্বিগ্ন ছিল এবং এ কারণে ওই দলের বিজয় ঠেকানোর জন্য মার্কিন সরকার সম্ভাব্য সব প্রচেষ্টা চালিয়েছে। তিনি বিগত কয়েক দশকে চিলি, আর্জেন্টিনা, জাপান, পশ্চিম জার্মানি, ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া, লেবানন, মালয়েশিয়া ও ইরানের নির্বাচনে প্রকাশ্য মার্কিন হস্তেেপর কথা উল্লেখ করে বলেন, ওয়াশিংটন এসব নির্বাচনে নিজের সমর্থক ব্যক্তি ও দলকে বিজয়ী করার চেষ্টা করেছে। 
বিশ্বের দুই-তৃতীয়াংশ দেশে এই হস্তপে গোপনে এবং এক তৃতীয়াংশ দেশে প্রকাশ্যে হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। 
ট্রাম্পের ইমপিচমেন্ট দাবিতে ২০ শহরে বিােভ
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইমপিচের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের অন্তত ২০টি শহরে বিােভ হয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার সংগঠন রিফিউজ-ফ্যাসিজমের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বিােভ সমাবেশ থেকে ট্রাম্প-পেন্স যুগের অবসান প্রত্যাশা করা হয়। বিােভ থেকে সংঘর্ষের সূচনা হওয়ার এক পর্যায়ে গ্রেফতার করা হয় দ্’ুজন ট্রাম্পবিরোধীকে।
শনিবার নিউ ইয়র্ক নগরী, নিউ জার্সি, শিকাগো, ফিনিক্স, ওয়াশিংটন, বোস্টন, পোর্টল্যান্ড এবং লস অ্যাঞ্জেলসসহ অন্তত ২০ স্থানে রিফিউজফ্যাসিজম আয়োজিত বিােভ হয়েছে। বিােভ থেকে ট্রাম্প-পেন্স প্রশাসনের শাসনকাল অবসানের ডাক দেয়া হয়েছে। বহুদিন থেকে ট্রাম্পের ইমপিচমেন্টের দাবি জানিয়ে আসছে বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের কট্টর বিরোধী সংগঠন রিফিউজ ফ্যাসিজম। হলিউডে দুই পরে সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে ট্রাম্পের সমর্থকসহ দুই বিােভকারীকে আটক করেছে পুলিশ।
ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসে রিফিউজ ফ্যাসিজম বলেছে, ট্রাম্প-পেনেন্স প্রশাসন প্রতিদিনই অভিবাসী এবং মুসলমানদের ওপর ফ্যাসিবাদী হামলা বাড়াচ্ছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য সেবার ভয়াবহতাও তুলে ধরা হয়। গরিব মার্কিন নাগরিক, কৃষ্ণাঙ্গ এবং বাদামী জনগোষ্ঠীসহ নারীদের বিরুদ্ধে বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের হামলার বিষয়টিও উঠে আসে বিােভ সামবেশে।
হলিউডে ট্রাম্পবিরোধী বিােভের পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয় তার সমর্থকদের বিােভ। দুই দলের মধ্যে সংঘর্ষের জের ধরে দুই ব্যক্তিকে এখান থেকে আটক করা হয়। গ্রেফতারদের মধ্যে একজন ট্র্রাম্পের সমর্থক। বিরোধীপরে এক ব্যক্তির ওপর হামলার দায়ে তাকে আটক করা হয়েছে। হামলার শিকার ৭২ বছর বয়সী মার্কিন নাগরিক বলেছেন, হামলাকারীর বিরুদ্ধে মামলা করবেন তিনি। আটক দ্বিতীয় ব্যক্তি সম্পর্কে কোনো তথ্য খবরে দেয়া হয়নি। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার হলিউড বুলেভার্ডে ট্র্রাম্প সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটল। মার্চে একই রকম বিােভ শোভাযাত্রা করেছিল উভয় প। 
মুসলিম নিষেধাজ্ঞা : ফের সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্প প্রশাসন
 ছয় মুসলিম দেশ থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ব্যাপারে ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা ফেডারেল কোর্টে ধাক্কা খেয়ে আবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলো মার্কিন প্রশাসন। সিরিয়া, ইরাক, সোমালিয়ার মতো মুসলিম দেশ থেকে আমেরিকায় প্রবেশের েেত্র ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা শনিবারই শিথিল করার কথা বলেছিল হাওয়াই স্টেটের ফেডারেল বিচারক। রাতারাতি পরিধি বাড়ানো হয়েছিল ‘নিকট আত্মীয়ের’। বলা হয়েছিল, কর্মসূত্রে ওই ছ’টি দেশ থেকে যারা যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন, তাদের দাদা-দাদী, নানা-নানী, নাতি-নাতনী, চাচা-চাচী, ভাইপো-ভাইঝি কিংবা সম্পর্কিত ভাইবোনদেরও যুক্তরাষ্ট্রে আসতে দিতে হবে। শুক্রবার রাতে সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করল ট্রাম্প প্রশাসন।
 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫