ঢাকা, সোমবার,২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

পাঠক গ্যালারি

মেডিটেশনসেবা : ভ্যাট স্থায়ীভাবে প্রত্যাহার করা হোক

ডা: চমন আরা

০১ জুলাই ২০১৭,শনিবার, ১৯:৩৭ | আপডেট: ০১ জুলাই ২০১৭,শনিবার, ১৯:৫০


প্রিন্ট

‘মেডিটেশন’ ইংরেজি শব্দ। এর বাংলা প্রতিশব্দ ‘ধ্যান’। আর আরবিতে বলে ‘মোরাকাবা’। মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সা: ধ্যান করতেন। যুগে যুগে মুনি-ঋষি-বুজুর্গরা ধ্যান করে আসছেন। এভাবেই তারা অন্তরাত্মাকে আলোকিত করেছেন। মেডিটেশন কোনো ভোগ্য বা বাণিজ্যিক পণ্য নয় যে, এর ওপর কর (tax) আরোপ করতে হবে। শিক্ষা এবং চিকিৎসাসেবায় যদি ভ্যাট না থাকে, তবে মেডিটেশনের ওপরও ভ্যাট থাকা উচিত নয়। কারণ, meditation is a science of living- জীবনযাপনের বিজ্ঞান। এটি একটি শিক্ষা এবং একই সাথে স্বাস্থ্যসেবা, চিকিৎসাসেবা, জনকল্যাণমূলক সেবা। এখানে আছে বৈজ্ঞানিক খাদ্যাভ্যাসের কথা; আছে যোগব্যায়াম, শারীরিক-মানসিক, আত্মিক এবং আধ্যাত্মিক উন্নয়নের পদ্ধতির কথা। এখানে মানুষ শেখে কিভাবে রোগ প্রতিরোধ করা যায়। অনিদ্রা, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চরক্তচাপ, আরথ্রাইটিস, যেকোনো ধরনের আসক্তি- এসব থেকে মুক্ত থাকতে মেডিটেশনের জুড়ি নেই। আজকের প্রজন্ম যে মাদকাসক্ত, মোবাইল, ফেসবুক ইত্যাদি ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় আসক্ত, এর প্রতিকারের জন্য ডাক্তার কিন্তু কোনো ওষুধ প্রেসক্রাইব করেন না; বরং প্রেসক্রিপশনে থাকে খেলাধুলা, ব্যায়াম বা শরীরচর্চা এবং মেডিটেশনের কথা। অর্থাৎ alternative treatment। মানুষের ৭৫ শতাংশ রোগ হচ্ছে মনোদৈহিক রোগ (psycho-somatic disease)। এ রোগের কোনো ওষুধ ফার্মেসিতে নেই। এ রোগের একমাত্র ওষুধ হচ্ছে মেডিটেশন। মেডিটেশনের মাধ্যমেই জানতে পারা যায় সঠিক জীবনদৃষ্টি এবং সঠিক জীবনাচার (lifestyle) কেমন হবে। ২১ জুনকে আন্তর্জাতিক বা বিশ্ব যোগ দিবস ঘোষণা করা হয়েছে। নামাজের প্রতিটি posture একেকটি যোগাশন। সুতরাং, মেডিটেশন ব্যায়াম ধর্মবিজ্ঞান, দর্শন ও চিকিৎসা অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। এ সেবার ওপর যদি ভ্যাট আরোপ করা হয়, তাহলে সমাজের একটি বিরাট অংশ এর উপকার থেকে বঞ্চিত হবে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, এমনকি ভারতও মেডিটেশনের ওপর কোনো ভ্যাট রাখেনি। বাংলাদেশে এ পর্যন্ত এ সেবার ওপর ভ্যাট চালু না হলেও প্রতি বছরই এ নিয়ে একটি দোদুল্যমান পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। সরকারের কাছে আকুল আবেদন, এই দোদুল্যমানতা দূর করতে মেডিটেশনসেবার ওপর থেকে ভ্যাট (vat) স্থায়ীভাবে প্রত্যাহার করা হোক।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫