ঢাকা, মঙ্গলবার,২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭

প্রযুক্তি দিগন্ত

নিরাপদ রাখুন অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস

আহমেদ ইফতেখার

০১ জুলাই ২০১৭,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

স্মার্টফোন ও ট্যাবলেটে মানুষের নির্ভরতা বেড়েই চলেছে। এ ধরনের ডিভাইসে আমাদের ব্যক্তিগত তথ্য বেশি সংরণ করায় তথ্য চুরির ঝুঁকি বাড়েছে। অ্যান্ড্রয়েড এখন অন্যতম জনপ্রিয় মোবাইল প্ল্যাটফর্ম। অ্যান্ড্রয়েডের জনপ্রিয়তার মূল কারণ হলো সহজ কাস্টমাইজেশান ও নানারকম অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের সুবিধা। আর অ্যান্ড্রয়েডে অনেক সমস্যার একটি হচ্ছে থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশন। আপনার ডিভাইসের সুরক্ষার জন্য কিছু সেবা ব্যবহার
করতে পারেন। বিস্তারিত নিয়ে লিখেছেন আহমেদ ইফতেখার
অ্যাপ ডাউনলোডে সতর্কতা
অপরিচিতি কোনো উৎস থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করবেন না। অ্যান্ড্রয়েডের জন্য গুগলের প্লে স্টোরের অ্যাপসই ডাউনলোড করুন। গবেষকেরা পরামর্শ দিয়েছেন, কেবল উৎস নিশ্চিত হয়ে এবং পরিচিত প্ল্যাটফর্ম থেকেই অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন। কোনো অ্যাপ্লিকেশন ইনস্টল করার আগে আপনার অনুমতি চাওয়া হচ্ছে কিনা তা খেয়াল করুন এবং অনুমতি দেয়ার আগে অ্যাপসটির উৎস সম্পর্কে নিশ্চিত হন।
আপনার স্মার্টফোন বা ট্যাবে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে অ্যাপস লক ব্যবহার করতে পারেন। গ্যালারি কিংবা মেসেজিংয়ের সুরা হিসেবে গুগল প্লে থেকে অ্যাপ লক ডাউনলোড করে নিতে পারেন। এ ধরনের অ্যাপ ব্যবহার করলে আপনাকে আলাদা করে পাসওয়ার্ড বা পিন কোড সেট করে দিতে হবে যাতে কোনো নির্দিষ্ট অ্যাপ্লিকেশন চালু করতে গেলে আগে পাসওয়ার্ড খুলে তারপর ঢুকতে হয়।
অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার সময় নিশ্চিত হয়ে নিন অ্যাপ্লিকেশনটির নির্মাতা সম্পর্কে। আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি ‘পাইরেটেড’ কপি কি না তাও জেনে নিন। কারণ, এ রকম অ্যাপে থাকে স্মার্টফোনের জন্য তিকর ম্যালওয়্যার। আর তাই সবসময় ব্যবহার করুন নিরাপদ অ্যাপ্লিকেশন।
স্ক্রিন লক ব্যবহার
প্রতিটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনে নিরাপত্তা হিসেবে স্ক্রিন লক করার সুবিধা রয়েছে। পিন, পাসওয়ার্ড কিংবা প্যাটার্ন লক পদ্ধতির মাধ্যমে আপনার পণ্যটিকে লক করে রাখতে পারেন। অ্যান্ড্রয়েডের সিকিউরিটি সেটিংসে গিয়ে লক সক্রিয় করা যায়। স্বয়ংক্রিয় বা নির্দিষ্ট সময় অন্তর লক করা বিষয়টিও সেটে করা যায়।
ডিভাইস এনক্রিপ্ট
আপনার পণ্যের সব ডাটা এনক্রিপ্ট করার সুবিধা দেয় অ্যান্ড্রয়েড। অ্যান্ড্রয়েডের সিকিউরিটি সেটিংস থেকে ডাটা এনক্রিপ্ট করা যায়। এতে মোবাইল বা ট্যাব প্রতিবার চালু করার সময় ডাটা বা তথ্যে ঢুকতে আলাদা করে পাসওয়ার্ড ও পিন দেয়ার প্রয়োজন পড়ে। এনক্রিপশন করা থাকলে ফোন যদি দুর্বৃত্তের হাতে পড়ে এবং একবার বন্ধ করে তা আবার চালু করে তবে পিন বা পাসওয়ার্ড ছাড়া তথ্য চুরি করতে পারবে না। ডাটা এনক্রিপশন করলে ফোনের গতি কিছুটা কমে যেতে পারে।
অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজার
আপনার মোবাইল ফোন যদি বেহাত হয়ে যায় তখন অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজার ফিচারটির কল্যাণে আপনার পণ্যটিকে গুগল ম্যাপে ট্র্যাক করতে পারবেন। এ ছাড়াও মোবাইল ফোনটি চালু থাকলে পূর্ণ ভলিউমে টানা পাঁচ মিনিট কল দিতে পারবেন। এমনকি দূর থেকেই আপনার সব তথ্য মুছে দিতে পারবেন। আপনার মোবাইল ফোনে ডিভাইস ম্যানেজার চালু রয়েছে কি না তা পরীা করতে সেটিংস থেকে সিকিউরিটিতে যেতে হবে। সিকিউরিটি সেটিংসের ডিভাইস অ্যাডমিনিস্ট্রেটর থেকে আপনি ডিভাইস ম্যানেজার চালু করতে পারেন।
ফোন রুট
ফোন রুট করা হলে কাস্টম অ্যান্ড্রয়েড রমের পাশাপাশি তিকর অ্যাপসও ইনস্টল হয়ে যেতে পারে। রুট অ্যাকসেস সুবিধার অ্যাপ পণ্যের ফাইল সিস্টেমকে অন্যান্য তিকর অ্যাপসের জন্য উন্মুক্ত করে দিতে পারে। এ ছাড়াও ফোন রুট করার বিষয়টি ফোন ওয়্যারেন্টির লঙ্ঘন হতে পারে।
সফটওয়্যার হালনাগাদ
গুগল সফটওয়্যার আপডেট উন্মুক্ত করে যার মধ্যে বেশ কিছু নিরাপত্তা প্যাঁচ দেয়া থাকে। ডিভাইস সেটিংস থেকে সফটওয়্যার আপডেটের বিষয়টি দেখে নেয়া যেতে পারে। সেটিংসের অ্যাবাউট ডিভাইস মেনু থেকে সিস্টেম আপডেটের বিষয়টি দেখে নেয়া যায়।
আপডেটেড ওএস
কিছু দিন পরপরই বের হচ্ছে আপডেটেড ওএস, যার মাধ্যমেও নিশ্চিত করতে পারেন আপনার স্মার্টফোনটির নিরাপত্তা। আপডেটেড ওএস সবসময় চেষ্টা করে স্মার্টফোনটিকে আরো সুরতি রাখার ও বিভিন্ন নতুন সেবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার। সুতরাং ব্যবহারকারীদের উচিত অপারেটিং সিস্টেমের নতুন ভার্সন বের হলেই স্মার্টফোনের অপারেটিং সিস্টেম আপডেট করে নেয়া।
ব্রাউজিং
আপনার অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন বা ট্যাব থেকে ব্রাউজ করার সময় ছদ্মবেশে ব্রাউজ করুন। যদি ক্রোম দিয়ে ব্রাউজ করেন তবে অবশ্যই গুগল অ্যাকাউন্ট থেকে সাইন আউট হয়ে ব্রাউজ করবেন। আপনার পণ্যটি যদি একাধিকজন ব্যবহার করেন তবে ইনকগনিটো মোড বা পরিচয় গোপন রেখে ব্রাউজ করাটাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। ক্রোম ব্রাউজার আপনার সার্চ ও ব্রাউজিংয়ের ইতিহাস সংরণ করে এবং আপনার সাইন-ই থাকা অন্যান্য ডিভাইসেও তা সিনক্রোনাইজ করে।
কাউড স্টোরেজ
অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের কাউড স্টোরেজ সুবিধাটি ব্যবহার করে সহজেই সংরণ করা যায় প্রয়োজনীয় তথ্য। তবে সেবাটি আরো সতর্কভাবে ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছেন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা। কাউড স্টোরেজ সেবাটির সাথে একাধিক ফিচার ব্যবহার না করে পর্যাপ্ত ফাইল শেয়ার করার পরামর্শ দেন তারা।
ডেটা ব্যাকআপ
যেকোনো সময় নষ্ট, চুরি অথবা হারিয়ে যেতে পারে আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনটি। সে েেত্র আশঙ্কা রয়েছে আপনার মূল্যবান ও ব্যক্তিগত তথ্য হারিয়ে যাওয়ার এবং অন্য কারো হাতে চলে যাওয়ার। এ ঝামেলা থেকে বাঁচার জন্য ব্যবহার করুন ব্যাকআপ। ফলে ফিরে পাবেন আপনার দরকারি তথ্যগুলো।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫