ঢাকা, সোমবার,২৬ জুন ২০১৭

রংপুর

ব্রিজের উপর পাহারা

মোঃ রেজাউল ইসলাম, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা)

১৯ জুন ২০১৭,সোমবার, ১৮:৪৮


প্রিন্ট

ব্রিজের মাঝখানে ধসে গেছে। তবে একটু দূর থেকে গাড়িচালকের বোঝার কোনো উপায় নেই। যেকোনো মুহূর্তে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সে কারণে ব্রিজের উপর পৌরসভার পক্ষ থেকে পাহারাদার বসানো হয়েছে। পাশাপাশি ব্রিজের দু'পাশে সর্তকবার্তার সাইনবোর্ড এবং লাল কাপড়ের নিশান ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে এ ভাবে আর কতদিন চলবে প্রশ্ন পৌরবাসীর।
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার মীরগঞ্জ-রংপুর সড়কে মীরগঞ্জ খালের উপর ডাকবাংলো ব্রিজটির এ অবস্থা দীর্ঘ ৫ বছর ধরে। ঝুঁকি নিয়ে পথচারী ও ছোট-খাটো যানবাহন চলাচল করছে প্রতিনিয়ত। যেকোনো মুহূর্তে ধসে পড়তে পারে ব্রিজটি। ব্রিজটির উপর দিয়ে যাতে করে ভারী যানবাহন চলাচল করতে না পারে সে জন্য পৌরসভার পক্ষ হতে স্থানীয় একজন যুবককে পাহারাদার হিসেবে রেখে দেয়া হয়েছে।
মীরগঞ্জ বাজারের রড, সিমেন্ট, টিন ব্যবসায়ী মতিয়ার রহমান ও খোকন কুমার সাহা জানান, ব্রিজটি মারাত্মকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন থেকে ব্রিজটির উপর দিয়ে ট্রাক চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। যার কারণে আমাদেরকে ট্রাকে করে মালামাল নিয়ে এসে সুন্দরগঞ্জ বাজারে নামিয়ে তা ভ্যান যোগে দোকানে নিতে হচ্ছে। এতে করে অতিরিক্ত ভাড়া দিতে হচ্ছে। সে কারণে নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি টাকা নিতে হচ্ছে ক্রেতাদের নিকট থেকে। ব্রিজটি নির্মাণ অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে।
ব্রিটিশ আমলে নির্মাণ করা হয় এই ব্রিজটি। নির্মাণের পর থেকে আজ পর্যন্ত ব্রিজটি সংস্কার ও মেরামত করা হয়নি। ইতিমধ্যে ব্রিজটির রেলিং ভেঙ্গে গেছে, পিলার এবং ব্রিজের মাঝ খানে ধসে গিয়ে রড বের হয়ে গেছে। বর্তমানে ব্রিজটি ব্যবহারের অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। ব্রিজটির উপর ১০ হতে ১৫ জন মানুষ উঠলে অনবরত কাঁপতে থাকে।
পৌর মেয়র আব্দুল্লাহ্-আল-মামুন জানান, ব্রিজটি পৌর শহরের মধ্যে হলেও এটি জেলা পরিষদের আওতাধীন। ব্রিজটি নির্মাণের ব্যাপারে বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করা হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল মনছুর জানান, ব্রিজটির পুনঃনির্মাণের জন্য চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে। আশা করছি, খুব শিগগিরই বরাদ্দ পাওয়া যাবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫