ঢাকা, বুধবার,২৪ মে ২০১৭

রকমারি

এক শিংয়ের ভেড়া ইনহিরনিংগার

মো: আবদুস সালিম

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ২০:৪৩


প্রিন্ট

তোমাদের সবার জানা আছে গরু, ছাগল, ভেড়া প্রভৃতি গৃহপালিত পশুর দুটি করে শিং থাকে। এ ধরনের প্রাণীর একটি শিং থাকে এমন কথা মনে হয়তো শোনা হয়নি তোমাদের। এমন কথা শোনা বা জানা না গেলেও সত্যি সম্প্রতি এক শিংয়ের একটি ভেড়ার সন্ধান মিলেছে।
এ ধরনের ভেড়া পাওয়া গেছে আইসল্যান্ডে। তা দেখে সেখানকার মানুষ তো খুবই অবাক। তারা বলছেন, এক শিংওয়ালা এমন অদ্ভুত প্রাণী আগে দেখিনি, পাওয়া যাওয়ার কথাও শোনা যায়নি।
জানা গেছে, একটি এক শিংয়ের ভেড়া আইসল্যান্ডে জন্ম নেয় গত বছরের শীতে। প্রথম অবস্থায় (এটি পাওয়ার) তেমন ভালোভাবে বোঝা বা জানা যায়নি এর অদ্ভুত বা অবাক করা যত বৈশিষ্ট্য। জন্মের প্রথম অবস্থায় ভেড়াটির শরীর-স্বাস্থ্য ছিল খুবই দুর্বল। অনেকে মনে করতেন, এটি হয়তো বাঁচবে না। তাই এর মালিক এটিকে পাহাড়ে নিয়ে ফেলে আসেন। তবে অদ্ভুত এই প্রাণীটি দেখে ফেলে সেখানকার (আইসল্যান্ডের) এক কৃষক। তিনি এটিকে উদ্ধার করেন অবাক করা কোনো প্রাণী বলে। তিনি এটিকে লালন পালনও করতে থাকেন। এর এখনকার মালিক ইরলা বলেন, রীতিমতো অদ্ভুত এর শিংটি।
বিজ্ঞানীরা প্রাণীটিকে নিয়ে গবেষণা শুরু করেছেন। তারা এর নাম দিয়েছেন ইনহিরনিংগার। এক শিংওয়ালা এ ধরনের প্রাণীকে বলা হয়ে থাকে ইউনিকর্ন। একসময় এ ধরনের ঘটনাকে অনেকে রূপকথার গল্প মনে করত। শেষ পর্যন্ত তা বাস্তবে রূপ নিলো আইসল্যান্ডে। এক সময়ে এ ধরনের এক শিংওয়ালা ঘোড়া দেখা যেত সিন্ধু উপত্যকায়। এর উল্লেখ আছে প্রাচীন সাহিত্যেও। ইনহিরনিংগারের কপালের মাঝখানে রয়েছে বাঁকানো শিংটি। এর ওপরের শেষ অংশে হালকা করে দুটো ভাগ লক্ষ করা যায়। এ জন্য অনেকে এটিকে দুই শিংয়ের ভেড়াও বলে থাকেন। তবে বিজ্ঞানীরা এটিকে এক শিংয়ের প্রাণী বা ভেড়া বলে স্বীকৃতি দিয়েছেন।
বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এর বিশেষত্ব হলো এ ভেড়া থেকে বাচ্চা প্রসব করা যায় না বললেই চলে। তাই এটিকে অন্য ভেড়াদের সাথে না রেখে ওদের ঘরের বাইরে রাখা হয়েছে। কারণ এর স্বভাব সাধারণ ভেড়ার স্বভাবের মতো নয়। তবে এ ভেড়াকে আইসল্যান্ডের রিকজাভিক চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ তাদের চিড়িয়াখানায় নেয়ার কথা জানিয়েছে। তা রাখা হবে চিড়িয়াখানার দর্শনার্থীদের জন্য। অনেকে ইনহিরনিংগারকে ইউনিকর্ন ভেড়াও বলছেন। এটিকে একনজর দেখার জন্য সবাই ভিড় করছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫