ঢাকা, বুধবার,২৪ মে ২০১৭

মিউজিক

বিশিষ্ট তারকা কীর্তিমান পুরস্কার পাচ্ছেন রুনা লায়লা

বিনোদন প্রতিবেদক

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ১৬:১৫


প্রিন্ট

খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা আবারো আন্তর্জাতিক সম্মাননায় ভূষিত হতে যাচ্ছেন। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘ব্যারিনু ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট’ রুনা লায়লাকে ‘ডিস্টিনগুইশ সেলেব্রেটি লিজেন্ড অ্যাওয়ার্ড’-এর জন্য মনোনীত করেছে। বাংলায় যাকে বলা হচ্ছে ‘বিশিষ্ট তারকা কীর্তিমান পুরস্কার’।

‘ইন্সপায়ারিং ওম্যান ক্রিয়েটিভিটি অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারসিপ ইন দ্য গ্লোবাল ইকোসিস্টেম’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে আগামী ২৫ মে রুনা লায়লার হাতে সম্মানজনক এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।

সঙ্গীত, শিল্পচর্চা ও নারী উন্নয়নের অনুপ্রেরণা হিসেবে তিনি এ সম্মাননা পাচ্ছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে অবস্থিত ট্রাম্প ওয়ার্ল্ড টাওয়ারে এক অনাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে রুনা লায়লার হাতে এই পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।। ইতোমধ্যে আয়োজক কর্তৃপক্ষ ই-মেইলের মাধ্যমের রুনা লায়লাকে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

আয়োজক কর্তৃপক্ষ রুনা লায়লাকে জানায়, ‘সঙ্গীতে আজীবন অসাধারণ অবদান ও আপনার নিজের দেশ বাংলাদেশসহ এশিয়া ও বিশ্বব্যাপী নারীদের সৃজনশীলতা উন্নয়নে দৃষ্টান্তমূলক অবদানের জন্য আপনাকে এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।’

অনুষ্ঠানে শুধু সম্মাননাই গ্রহণ করছেন এমন নয়, অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবেও উপস্থিত থাকবেন রুনা লায়লা।

রুনা লায়লা বলেন, ‘পুরো বিষয়টিই আমার জন্য যেমন অনেক আনন্দের, গর্বের সেই সাথে একজন বাংলাদেশী হয়ে এমন একটি পুরস্কার লাভের বিষয়টি একজন বাংলাদেশী হিসেবে অনেক সম্মানেরও। নিশ্চয়ই একজন নারী হিসেবে এ সম্মাননা আমার কাছে বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। যারা সম্মাননা দিচ্ছেন তাদেরকেও অনেক শুভেচ্ছা।’

গিনেজ বুকে স্থান পাওয়া রুনা লায়লা ১৮টি ভাষায় গান গাইতে পারেন। বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে তিনি তিন শতাধিক পুরস্কার লাভ করেছেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, স্যায়গাল অ্যাওয়ার্ড অব ইন্ডিয়া, নিগার অ্যাওয়ার্ড অব পাকিস্তান, কালাকার অ্যাওয়ার্ড, গ্র্যাজুয়েট অ্যাওয়ার্ড প্রভৃতি। ২০১৫ সালে রুনা লায়লা তার সঙ্গীতজীবনের পাঁচ দশক পূর্ণ করেছেন।

১৯৭৭ সালে আবদুল লতিফ বাচ্চু পরিচালিত ‘যাদুর বাঁশি’ চলচ্চিত্রে প্লে ব্যাক করার জন্য প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন রুনা লায়লা। পরে তিনি একই সম্মাননায় ভূষিত হন অ্যাকসিডেন্ট, অন্তরে অন্তরে, তুমি আসবে বলে, দেবদাস, প্রিয়া তুমি সুখী হও চলচ্চিত্রে প্লে ব্যাকের জন্য।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫