ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২৯ জুন ২০১৭

বিবিধ

আপনি কী বারবার ভুলে যান? তাহলে বিপদ

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ১৩:৩১


প্রিন্ট

ছোটখাটো সব জিনিস ভুলে যাচ্ছেন? ভুলেও হেলাফেলা করবেন না। কারণ অল্পস্বল্প ভুলে যাওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু বারবার একই ঘটনা ঘটা স্বাভাবিক নয়। এই যেমন- চাবি কোথায় রেখেছেন তা ভুলে বাড়ি মাথায় করছেন। অথবা পরিচিত কারোর নাম ভুলে বসে আছেন। বা মোবাইল কোথায় রেখেছেন সেটাই মনে করতে পারছেন না। বেমালুম ভুলে যাচ্ছেন দৈনন্দিন জীবনের নানা খুঁটিনাটি। তাহলে জেনে রাখুন, বিপদ দোরগোড়ায়।

এই ভুলে যাওয়ার পিছনে কার্যকারণ হতে পারে একাধিক-
১) অবসাদ
২) ওষুধের সাইড এফেক্ট
৩) অত্যধিক মাত্রায় মদ্যপান
৪) দেহে ভিটামিন বি-১২ এর হার কম থাকা
৫) থাইরয়েড লেভেল কম
৬) ক্রমাগত মানসিক চাপ
৭) হাই কোলেস্টেরল
৮) নিঃসঙ্গতা
৯) ঘুমের সমস্যা
১০) সঠিক পুষ্টির অভাব

জীবনে নানাভাবে প্রভাব ফেলতে পারে এই ভুলে যাওয়ার প্রবণতা। অনেকসময় সাম্প্রতিক ঘটনা ভুলে যাওয়া এবং হাজার চেষ্টাতেও তা না মনে পড়া। কথা বলার সময় হঠাৎ করে যথাযথ শব্দ না মনে করতে পারা। জানা পথঘাট ভুলে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটে। কোনো জিনিস যে জায়গায় রাখার কথা, তা অন্য জায়গায় রেখে খুঁজে বেড়ানো। কাজের পরিকল্পনা ঠিকমতো না করতে পারার সমস্যাও দেখা দেয়।

ভুলবশত ভুলে যাওয়াটা এক-দু বার হলে চিন্তার কারণ নেই। কিন্তু যদি বারবার হয়! তাহলে কিন্তু অবশ্যই এটা নিয়ে ভাবা জরুরি। ভুলে যাওয়ার প্রবণতা চলতে থাকলে, ভবিষ্যতে অ্যালঝাইমার্স রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সাধারণত ৮০ বছরের উর্ধ্বে এই রোগের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। মস্তিষ্কের কোষ বা নিউরোনগুলো শুকিয়ে গিয়ে স্মৃতিভ্রংশ হওয়াকে ডিমেনসিয়া বলা হয়। অনেক সময় নিজের অজান্তেই মস্তিষ্কে ছোট ছোট স্ট্রোকের ফলে কোষ শুকিয়ে যেতে থাকে। ভবিষ্যতে এমন বড় বিপদ থেকে বাঁচতে, বর্তমানে সতর্ক হওয়া দরকার।

মস্তিষ্কের নিউরোসেল সক্রিয় রাখার চেষ্টা করতে হবে। শরীর সচল রাখতে হবে, যা মস্তিষ্কে রক্ত সঞ্চালন ঘটাবে। রক্তচাপ, ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি। চর্বিজাতীয় খাবার কম খেতে হবে। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা দরকার। ধূমপান সবার আগে ছেড়ে দেয়া উচিত।

প্রতিদিনের জীবনে ছোট ছোট ভুলে যাওয়াকে মনে রেখে তাই এখনই সতর্ক হোন। নয়ত মহাবিপদ সামনে।

সূত্র : ইন্টারনেট

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫