গৌরনদীতে শ্রমিকলীগ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ : আহত ৩

গৌরনদী (বরিশাল) সংবাদদাতা
বরিশালের গৌরনদী উপজেলা সদরে বুধবার শ্রমিকলীগের ও ছাত্রলীগ দুই দল কর্মীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তিনজন আহত হন। গুরুতর আহত দু’জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার গৌরনদী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।  
স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ জানান, দূরপাল্লার বাস সুগন্ধা মালিক কর্তৃপক্ষ স্থানীয় কাউন্টার পরিচালনার জন্য দায়িত্ব দেন শ্রমিকলীগ কর্মী রুহুল আমিন হাওলাদার (৪০) ও ছাত্রলীগ কর্মী বেলাল মিয়াকে (২৫)। দীর্ঘ দিন ওই কাউন্টারের আয় রোজগার বেলাল মিয়াকে না দিয়ে রুহুল আমিন একই ভোগ করেন। এ নিয়ে গত বুধবার রুহুল ও বেলালের মধ্যে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ শুরু হলে শ্রমিকলীগ কর্মী রুহুল আমিন, ছাত্রলীগ কর্মী বেলাল মিয়া ও মামুন মিয়া আহত হন। গুরুতরভাবে আহত দু’জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। 
রুহুল আমিন অভিযোগ করে, ৫-৬ দিন আগে সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী বেলাল মিয়া ও মামুন মিয়া তার কাছে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দেয়ায় তাকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে চলে যায়। গত বুধবার বেলাল মিয়া ৫-৬ জন সহযোগী নিয়ে বাসস্ট্যান্ডে-কাউন্টারে পৌঁছে তার কাছে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে তাকে জখম করে ১৩ হাজার ২০০ টাকা ও একটি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেন। এ সময় তাকে রক্ষায় তার কাউন্টারের দুই কর্মী এগিয়ে এলে তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করেছে। 
এ অভিযোগ অস্বীকার করে সরকারি গৌরনদী কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী বেলাল মিয়া বলেন, তিনি ওই কাউন্টার অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে পরিচালনা করে আসছেন। লভ্যাংশ সমহারে বণ্টন করে নেয়ার কথা। কিন্তু কয়েক মাস ধরে রুহুল আমিন তাকে লভ্যাংশ না দিয়ে একাই ভোগ করেন। আমি আমার অংশ চাইতে গেলে রুহুল আমিন সন্ত্রাসী নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালান।
গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক মো: আফজাল হোসেন জানান, এ ঘটনায় রুহুল আমিন বাদি হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার চারজনকে আসামি করে মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। অপরপক্ষ কোনো মামলা দায়ের করেনি। এ বিষয়ে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.