ঢাকা, সোমবার,২১ আগস্ট ২০১৭

শেষের পাতা

হাওর অঞ্চলের ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের অর্ধেক সুদে ঋণ দেয়া হবে : প্রধানমন্ত্রী

বাসস

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রিকশায় চড়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করছেন : পিআইডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রিকশায় চড়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করছেন : পিআইডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, হাওর এলাকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মধ্যে অর্ধেক সুদে নতুন কৃষিঋণ দেয়া হবে।
তিনি গতকাল নেত্রকোনায় এক জনসভায় তার সরকারের সিদ্ধান্ত পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, আগামী ফসল ঘরে ওঠা পর্যন্ত কৃষকদের মধ্যে বিতরণকৃত কৃষি ঋণের টাকা মওকুফ করা হলো।
শেখ হাসিনা বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকেরা পুনরায় কৃষিকাজ শুরুর জন্য ৪ দশমিক ৫ শতাংশ সুদে নতুন কৃষিঋণ পাবেন। একই সাথে সরকার তাদের পেশা বহুমুখীকরণের জন্যও সহায়তা প্রদান করবে। 
বন্যাদুর্গত এলাকার সুরক্ষায় সরকার পক্ষ থেকে সব রকমের ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কেউ অনাহারে থাকবে না, আশ্রয়হীন থাকবে না; যেহেতু ভিজিএফ কর্মসূচি এবং ওএমএস কর্মসূচি হাওর এলাকায় অব্যাহত থাকবে।
সকালে জেলার বন্যাদুর্গত হাওর এলাকা সচক্ষে দেখার জন্য শেখ হাসিনা হেলিকপ্টারে বন্যাদুর্গত খালিয়াজুরি উপজেলা পরিদর্শনে আসেন। খালিয়াজুরি ডিগ্রি কলেজ মাঠে বন্যাদুর্গত কৃষক এবং সাধারণ জনগণের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণের পূর্বে তিনি এই জনসভায় বক্তৃতা করেন। পরে তিনি উপজেলার বন্যাকবলিত এলাকাগুলো পরিদর্শন করেন।
গত মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে মওসুমি বৃষ্টিপাত এবং পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় এ অঞ্চলের ব্যাপক জমির বোরো ধান ক্ষতিগ্রস্ত হলে হাজার হাজার কৃষকের জীবন-জীবিকা হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে। সরকারি হিসাব মতে, বন্যায় ১০টি উপজেলার ৮৬টি ইউনিয়ন ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ২৮ হাজার ৪২৫ হেক্টর কৃষিজমি তলিয়ে যায় এবং এক লাখ ৬৫ হাজার কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, পানি সম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, স্থানীয় সংসদ সদস্য রেবেকা মমিন জনসভায় বক্তৃতা করেন।
অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়ও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী কৃষকদের শুধুমাত্র ধান চাষের ওপর নির্ভরশীল না থেকে তাদের পেশার বহুমুখীকরণের মাধ্যমে পিসি কালচার, হর্টিকালচার এবং ডেইরি ও পোলট্রি শিল্পের প্রতি ঝোঁকার জন্য আহ্বান জানান।
হাওর এলাকায় বোরো ধানের পাশাপাশি মৎস্য চাষ এবং গবাদিপশু পালনের ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, শুধু এক ফসলের ওপর (বোরো) নির্ভরশীল না থেকে ডাল, সরিষা এবং সবজি চাষের দিকেও কৃষকদের এগিয়ে আসতে হবে।
শেখ হাসিনা বলেন, নেত্রকোনার জনগণকে বন্যার কবল থেকে রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সব বাঁধ তৈরি ও সংস্কার করার উদ্যোগ নেবে সরকার। তাছাড়া এই হাওর এলাকার সব নদী পুনঃখননের উদ্যোগ নেয়া হবে। যাতে করে নদীগুলো পর্যাপ্ত পরিমাণ নাব্যতা বজায় রাখতে পারে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫