ঢাকা, সোমবার,২১ আগস্ট ২০১৭

ক্রীড়া দিগন্ত

ব্রাদার্সে ব্যাটিং বিপর্যয় মোহামেডানের

জুনায়েদ সিদ্দিকীর সেঞ্চুরি

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট
ব্রাদার্সে বিপর্যস্ত মোহামেডান। গতকাল প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেটে হেরেছে তারা ব্রাদার্সের কাছে ১২৯ রানের বড় ব্যবধানে। বিকেএসপি-৩ মাঠে অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে ব্যাটিং বিপর্যয় ঘটে শিরোপাপ্রত্যাশী দলটির। ইফতেখার সাজ্জাদ, নিহাদুজ্জামান ও কাজী কামরুলের নিখুঁত বোলিংয়ের সামনে ওই বিপর্যয় ঘটে দলটির। ব্যাটিং দলের তিনজন ব্যাটসম্যান যেতে পেরেছিলেন ডাবল ফিগারে। অন্যরা ব্যর্থ। এর মধ্যে সৈকত আলী করেন সর্বোচ্চ ৭০ রান। অভিষেক মিত্র ২৯ ও রকিবুলের ১৭ রানের ইনিংসের উল্লেখযোগ্য স্কোর। অন্যরা শুধু আসা-যাওয়ার মধ্যেই থাকেন। মূলত ব্রাদার্সের করা ২৭৬ রানের জবাবেই ভেঙে পড়ে মোহামেডানের ইনিংস। বিদেশী খেলোয়াড় ছাড়াও দলের তারকা ক্রিকেটার, সবাই ব্যর্থ এ ম্যাচে। ফলে ৩৫.৪ ওভারেই ভেঙে পড়ে দলের ব্যাটিং এবং অলআউট হয় ১৪৭ রানে। ভয়াবহ এমন ব্যাটিং বিপর্যয় মূলত দলের আত্মবিশ্বাসের অভাব। ব্রাদার্সের বোলিং লাইনে এমন আহামরি কোনো বোলার ছিল না। অথচ তাদের সামনেই ভেঙে পড়ে সব। ইফতেখার নেন চার উইকেট ১৯ রানে। এ ছাড়া কামরুল ও নিহাদুজ্জামানও নেন দু’টি করে উইকেট। এতে হেরে যায় তারা লড়াই না করেই এ ম্যাচে। 
এর আগে টসে জিতে মোহামেডান প্রথম ব্যাটিং করতে দিয়েছিল ব্রাদার্সকে। সে সুযোগে ৪৯ ওভারে নির্ধারিত এ ম্যাচে সংগ্রহ করে তারা ওই বিশাল স্কোর। দলের ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী করেন সেঞ্চুরি। ১১০ রান করে আউট হন তিনি। তার দায়িত্বপূর্ণ ইনিংসে রয়েছে ৮টি চারের মার। অবশ্য এ দিন জুনায়েদ সেঞ্চুার করতে ছিলেন দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। সূচনা থেকেই সেভাবেই ব্যাটিং করে গেছেন তিনি। গোটা ইনিংসে তিনিই যেন ক্রিজের এক প্রান্তে থেকে লিড দিয়ে গেছেন অন্যদের। সে সূচনা থেকে শুরু করে একেবারে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ব্যাটিং করে গেছেন। জুনায়েদ ছাড়া ইনিংসে আরেক অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান অলক কাপালীর ৫১ রানের ইনিংস উল্লেখযোগ্য। এ ছাড়া রুবেলের ৩৬, বিসলার ২৬ রান রয়েছে। শুধু ব্যাটসম্যানরাই নন; বোলারদেরও দুর্গতির আর অন্ত ছিল না। বল হাতে সুবিধাই করতে পারেননি এ দিন তারা। সাজেদুল, তাইজুল ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র লাভ করেন দুটি করে উইকেট। অথচ এদের মধ্যে তাইজুলের, এনামুলের ৫-৬ উইকেট নেয়ার যোগ্যতা রয়েছে। কাল তারা পারেননি ব্রাদার্সের ব্যাটসম্যানদের ওপর প্রভাব বিস্তার করতে। ফলে সূচনা থেকেই চাপে ছিল এ ম্যাচে মোহামেডান। ব্রাদার্সের ব্যাটসম্যানরা দায়িত্ব নিয়ে খেলে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে যায়। তবে এদের মধ্যে বড় পার্টনারশিপ খেলে দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান জুনায়েদ ও অলক কাপালী। এদের করা ১০০ রানের পার্টনারশিপ দলকে এগিয়ে নেয় বহুদূর। কাপালী আউট হয়েছিলেন দলীয় ১৮১ রানে। আর জুনায়েদ আউট হন আরো পরে গিয়ে অর্থাৎ ২৬১ রানে। 
সংক্ষিপ্ত স্কোর 
ব্রাদার্স ইনিংস : ২৭৬/৬ (৪৯ ওভার); জুনায়েদ সিদ্দিকী ১১০, অলক কাপালী ৫১, রুবেল ৩৬, বিসলা ২৬; সাজেদুল ২/৬২, তাইজুল ২/৪১, এনামুল ২/৫২।
মোহামেডান ইনিংস : ১৪৭/১০ (৩৫.৪ ওভার); সৈকত আলী ৭০, অভিষেক মিত্র ২৯, রকিবুল ১৭; ইফতেখার ৪/১৯, নিহাদুজ্জামান ২/৩১।
ফল : ব্রাদার্স ১২৯ রানে জয়ী।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫