ঢাকা, সোমবার,২৯ মে ২০১৭

অন্যদিগন্ত

২১ বছর ধরে পাইলটের কাজ করেন ডাচ রাজা

ডেইলি সাবাহ

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট

২১ বছর ধরে সরকারি বিমান পরিবহন সংস্থায় নিয়মিত ‘অতিথি পাইলট’ হিসেবে কাজ করেছেন নেদারল্যান্ডের রাজা উইলিয়াম আলেকজান্ডার। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে রাজা নিজেই চাঞ্চল্যকার এ তথ্য জানিয়েছেন। নেদারল্যান্ডের ‘দ্য টেলিগ্রাফ’ পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ডাচ রাজা জানান, ২০১৩ সালে সিংহাসনে বসার পরও তিনি নিয়মিত মাসে অন্তত দুইবার রাষ্ট্রীয় কেএলএম ডাচ রয়্যাল এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী ফাইট পরিচালনা করেছেন। তবে সবসময়ই তার ভূমিকা ছিল সহকারী পাইলটের (কো-পাইলট)। 
গত বছর সংস্থাটি ফকার-৭০ যাত্রীবাহী বিমান বন্ধ করে দেয়ার আগ পর্যন্ত তিনি এ দায়িত্ব পালন করেছেন রাজকীয় কাজ থেকে ছুটি নিয়ে। এয়ারলাইন্সটি এখন যাত্রী পরিবহনে বোয়িং-৭৩৭ বিমান চালু করেছে। রাজা আগ্রহ প্রকাশ করেছেন শিগগিরই বোয়িং চালানো শিখে আবারো তিনি আকাশে উড়বেন যাত্রীদের নিয়ে। ৫০ বছর বয়সী রাজা আলেকজান্ডার বিমান চালনাকে শখ হিসেবে উল্লেখ করেন। আকাশের অভিজ্ঞতার কথা স্মরণ করে ডাচ রাজা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে ৯/১১ হামলার আগে বিমানের ককপিটের দরজা খোলা থাকত। অনেক যাত্রী সেখানে উঁকি দিয়ে আমাকে দেখে চমকে যেতেন। আবার অনেকে চিনতেই পারতেন না আমাকে। ইউনিফর্ম পরে এয়ারপোর্টে আসার সময়ও খুব কম লোকই আমাকে চিনতে পারতেন।
কো-পাইলট হিসেবে বিমানে যাত্রীদের উদ্দেশ্যে কোনো ঘোষণা দেয়ার কাজটি রাজা আলেজান্ডারকেই করতে হতো। তবে তিনি কখনোই ঘোষণার সময় নিজের নাম বলতেন না। কোনো কোনো যাত্রী তার কণ্ঠ শুনে বুঝতে পারতেন রাজার নেতৃত্বে চলছে তাদের বিমান। সাধারণত স্বল্পপাল্লার আন্তর্জাতিক রুটের বিমানের ককপিটে বসতে ডাচ রাজা যাতে, জরুরি প্রয়োজন হলে দ্রুত দেশে ফিরতে পারেন। পত্রিকাটিকে তিনি জানান, তার বোয়িং চালনার প্রশিক্ষণ চলতি মাসের শেষেই শুরু হবে। এরপর আবারো তিনি যাত্রীদের নিয়ে উড়বেন আকাশে।
রাজা-বাদশাহদের শখের বসে বিমান চালনা অবশ্য বিশ্বে আরো আছে। ব্রুনাইয়ের সুলতান নিজেই তার বোয়িং-৭৪৭ চালান বলে জানা যায়। ব্রিটিশ যুবরাজ চার্লস ও তার দুই পুত্র প্রিন্স উইলিয়াম ও প্রিন্স হ্যারিরও পাইলট হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। জর্দানের বাদশা আবদুল্লাহরও আছে বিমান চালানোর প্রশিক্ষণ।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫