ঢাকা, শনিবার,২২ জুলাই ২০১৭

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য

বিদ্যুৎ প্রকল্পের অনুমতি পেয়েছে কনফিডেন্স

৪ মাসের সর্বনি¤œ অবস্থানে ডিএসই সূচক

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট
বড় পতন দিয়েই সপ্তাহ শেষ করল দেশের পুঁজিবাজার। গতকাল দুই পুঁজিবাজারেই সূচকের বড় ধরনের অবনতি ঘটে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৫ হাজার ৪১৯ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট থেকে দিন শুরু করা ডিএসইর প্রধান সূচকটি গতকাল দিনশেষে ৫ হাজার ৩৯৯ দশমিক ৬৬ পয়েন্টে স্থির হয়। আর এভাবে বিগত ৪ মাসের সর্বনি¤œ অবস্থানে নেমে আসে সূচকটি। এ বছরের ১৫ জানুয়ারির পর আর এত নিচে নামেনি সূচকটি। এ সময় লেনদেনের অবনতির পাশাপাশি দর হারায় লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ কোম্পানি। 
ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স গতকাল ৩০ পয়েন্ট হ্রাস পায়। ডিএসই-৩০ ও শরিয়াহ সূচকের অবনতি ঘটে যথাক্রমে ১০ দশমিক ৩২ ও ৩ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট। দ্বিতীয় পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক ও সিএসসিএক্স সূচকের অবনতি ঘটে যথাক্রমে ১১১ দশমিক ৯৫ ও ৬৭ দশমিক ৭২ পয়েন্ট। সিএসই-৫০ ও শরিয়াহ সূচক হারায় যথাক্রমে ৮ দশমিক ০৭ ও ৬ দশমিক ১২ পয়েন্ট। এর আগে টানা সাত দিন পতনের পর দু’দিন মিশ্র প্রবণতার মধ্য দিয়ে পার করে পুঁজিবাজারগুলো। 
সূচকের মতো অবনতি ঘটে দুই পুঁজিবাজারের লেনদেনে। ঢাকা শেয়ারবাজারে গতকাল ৬৩৫ কোটি টাকার লেনদেন নিষ্পত্তি হয়, যা আগের দিন অপেক্ষা ২৯ কোটি টাকা কম। বুধবার ডিএসইর লেনদেন ছিল ৬৮৪ কোটি টাকা। চট্টগ্রাম শেয়ারবাজারে ৪৩ কোটি টাকা থেকে ৩৮ কোটিতে নামে লেনদেন। 
বুধবারের মতো গতকাল সকালেও লেনদেন শুরুর পর আধঘণ্টা ঊর্ধ্বমুখী ছিল পুঁজিবাজারগুলো। এর পরই বিক্রিচাপের মুখে পড়ে বাজারগুলো। ঢাকা শেয়ারবাজার ডিএসইএক্স সূচকের ৫ হাজার ৪২৯ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট থেকে দিন শুরু করে বেলা ১১টা পর্যন্ত সূচকটির আগের দিনের অবস্থান ধরে রাখলেও বিক্রিচাপের শিকার হয়ে বেলা সাড়ে ১১টায় সূচকটি নেমে আসে ৫ হাজার ৪২০ পয়েন্টে। লেনদেনের এ পর্যায়ে সূচক সাময়িকভাবে ঊর্ধ্বমুখী হয় দুপুর ১২টায় পৌঁছে যায় ৫ হাজার ৪২৬ পয়েন্টে। কিন্তু দুপুর ১২টার পর আবার বিক্রিচাপের শিকার হয় এবং লেনদেন শেষ হওয়া পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকে। দিনশেষে ৩০ পয়েন্ট হারিয়ে ৫ হাজার ৩৯৯ দশমিক ৬৬ পয়েন্টে স্থির হয়। 
এ দিকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য পাওয়ার প্ল্যান্ট নির্মাণের অনুমতি পেয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড। ২২৬ মেগাওয়াট মতাসম্পন্ন দু’টি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের অনুমতি পেয়েছে কোম্পানিটি। এর মধ্যে ১১৩ মেগাওয়াট পাওয়ার প্লø্যান্টের জন্য অনুমতি পেয়েছে কোম্পানিটির সহযোগী প্রতিষ্ঠান কনফিডেন্স স্টিল লিমিটেড।
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। পাওয়া তথ্য অনুসারে নতুন এই প্রকল্পের জন্য ইতোমধ্যে বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডকে (বিপিডিবি) প্রকল্প ঘোষণাপত্র দিয়েছে কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড এবং কনফিডেন্স স্টিল লিমিটেড।
পাওয়ার প্ল্যান্ট দু’টির মধ্যে একটি রংপুরে এবং অন্যটি বগুড়ায় স্থাপন করা হবে। এই দুইটি বিদ্যুৎকেন্দ্রের জ্বালানি হিসেবে হেভি ফুয়েল অয়েল (এইচএফও) ব্যবহার করা হবে। এর জন্য ইতোমধ্যে বিপিডিবির সাথে চুক্তি করেছে কোম্পানি দু’টি। জানা গেছে, এই দুই বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রকল্পে কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেডের ৫১ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। বাকি ৪৯ শতাংশ কনফিডেন্স স্টিল লিমিটেডের।
সূত্র জানায়, বিপিডিবির সাথে বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তির (পিপিএ) ১৮ মাসের মধ্যে কোম্পানি দু’টি বাণিজ্যিক উৎপাদনে যেতে পারবে; যার মেয়াদ হবে ১৫ বছর। অর্থাৎ প্ল্যান্ট নির্মাণের পর ১৫ বছর পর্যন্ত এই কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনবে সরকার। এর মধ্যে রংপুর বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে প্রতি ইউনিট ৮ টাকা ২০ পয়সা এবং বগুড়া বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে প্রতি ইউনিট ৮ টাকা ২৪ পয়সা দরে বিদ্যুৎ কিনবে সরকার।
প্রসঙ্গত, গত ৫ এপ্রিল পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি কনফিডেন্স সিমেন্ট ও ডরিন পাওয়ার জেনারেশনস অ্যান্ড সিস্টেমসের তিনটিসহ নতুন সাতটি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের অনুমোদন দেয় ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। চলতি বছরের ৫০তম সভায় নতুন এই কেন্দ্রগুলোর অনুমোদন দেয়া হয়। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জ্বালানি খাতের আরো একটি কোম্পানি ডরিন পাওয়ার একইভাবে ১১৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন নতুন একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের অনুমতি পেয়েছে। 
গতকাল দুই পুঁজিবাজারের লেনদেনের শীর্ষে ছিল প্রকৌশল খাতের প্রতিষ্ঠান ইফাদ অটোস। ঢাকায় ৭১ কোটি ৭২ লাখ টাকায় কোম্পানিটির ৫১ লাখ ৯৫ হাজার শেয়ার হাতবদল হয়, যা দিনের মোট লেনদেনের ১১ শতাংশেরও বেশি। বুধবারও ডিএসইর মোট লেনদেনের প্রায় ১২ শতাংশ ছিল কোম্পানিটির দখলে। ২২ কোটি ১১ লাখ টাকায় ৬৮ লাখ ৪১ হাজার শেয়ার লেনদেন করে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ছিল দিনের দ্বিতীয় কোম্পানি। ডিএসইর লেনদেনের শীর্ষ দশ কোম্পানির অন্যগুলো ছিল যথাক্রমে ডরিন পাওয়ার, লঙ্কা-বাংলা ফিন্যান্স, বিডিকম অনলাইন, ব্র্যাক ব্যাংক, বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন, নাভানা সিএনজি, জাহিন স্পিনিং ও আমরা টেকনোলজিস।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫