ঢাকা, বৃহস্পতিবার,১৯ অক্টোবর ২০১৭

দিগন্ত সাহিত্য

বিশ্বসাহিত্যের টুকিটাকি

মতিন মাহমুদ

১৯ মে ২০১৭,শুক্রবার, ০০:০০


প্রিন্ট
মুরাকামির নতুন গল্পগ্রন্থ

জাপানি খ্যাতিমান ঔপন্যাসিক হারুকি মুরাকামি প্রায় এক যুগ পর আবার ছোটগল্পের জগতে ফিরে এসেছেন। সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে তার গল্পগ্রন্থ মেন উইডাউট ওমেন’র ইংরেজি অনুবাদ। তার উৎসাহী পাঠকেরা গল্পের ভুবনে মুরাকামির ফিরে আসাকে দেখছেন একটি যুগান্তকারী ঘটনা হিসেবে। মুরাকামি মূলত নাম করেছেন উপন্যাস লিখে। এগুলোর জাপানি ও ইংরেজি অনুবাদ লাখ লাখ কপি বিক্রি হয়েছে। তবে ছোট গল্পেও তিনি সিদ্ধহস্ত। তার ছোট গল্প যে ফুরিয়ে যায়নি এটা তারই প্রমাণ। মুরাকামির কথাসাহিত্যে হিউমার বা হাস্যরসের সাথে মেলাংকালি বা আত্মার ক্রন্দন দুই-ই থাকে। বর্তমান বইটিও তার ব্যতিক্রম নয়। ইতোমধ্যে তার ১৪টি উপন্যাস ও চারটি গল্পগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। এগুলোর প্রায় সবই ইংরেজিসহ বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে। তার নন ফিকশন বইয়ের সংখ্যাও কম নয়। মেন উইদাউট ওমেন গ্রন্থে স্থান পেয়েছে ছয়টি গল্প। ২০১৪ সালে এটির জাপানি ভার্সন প্রকাশিত হলেও ইংরেজি ভার্সন প্রকাশিত হলো ২০১৭ সালে। বইটি প্রকাশ করেছে হারভিল সেকার।

কাজাখিস্তানে ইউরো এশিয়ান বইমেলা
মধ্য এশিয়ার প্রজাতন্ত্র কাজাখিস্তানে আগামী মাসে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দ্বিতীয় ইউরো এশিয়ান ইন্টারন্যাশনাল বুক ফেয়ার। কাজাখিস্তানের আস্তানায় অনুষ্ঠিতব্য এই মেলার সাবেক নাম ‘আস্তানা এক্সপো ২০১৭’। এই মেলায় শতাধিক দেশ এবং ২০টির বেশি আন্তর্জাতিক সংস্থা যোগদান করবে বলে আয়োজকদের আশা। প্রকাশনা সংস্থাগুলো এবং শিক্ষা ও সংস্কৃতিবিষয়ক বিভিন্ন কেন্দ্রের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিতব্য এই মেলায় সাংস্কৃতিক ও ব্যবসায়ীক কার্যক্রমের পাশাপাশি লেখক ও পাঠকদের মিলনমেলায় পরিণত হবে। এই মেলার মূল আয়োজনে থাকবে আস্তানার ফলিয়েন্ট পাবলিশিং হাউস। সহযোগিতায় থাকবে কাজাখিস্তান প্রজাতন্ত্রের সংস্কৃতি ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, আস্তানা সিটি প্রশাসন এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। আগামী ১০ জুন সপ্তাহব্যাপী এই মেলা শুরু হবে। সোভিয়েত যুগ থেকে ক্রমেই বেরিয়ে আসছে মধ্য এশিয়ার প্রজাতন্ত্রগুলো। সেই সুবাতাসই যেন বইতে শুরু করেছে এসব বই মেলায়। মুক্ত গণতন্ত্রের আস্বাদ এরা কতখানি নিতে পারবে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫