ঢাকা, সোমবার,২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

ময়মনসিংহ

গফরগাঁওয়ে গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা

১৮ মে ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৬:১৯


প্রিন্ট

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার শিলাসী গ্রামে ঝুমা আক্তার (২৭) নামে এক গৃহবধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠেছে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। ১২ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত মঙ্গলবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মৃত্যু হয়েছে অগ্নিদগ্ধ ঝুমার।

হত্যার অভিযোগে নিহত গৃহবধূর বড় ভাই কামরুল ইসলাম আপেল বাদী হয়ে বুধবার রাতে গফরগাঁও থানায় ৮ জনকে আসামি করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার সালটিয়া ইউনিয়নের পূর্বশিলাসী গ্রামের মৃত আক্কাছ আলী মুন্সীর ছেলে হিরণ মিয়ার সাথে প্রায় ১৮ বছর আগে বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী ভালুকা উপজেলার বিরুনিয়া ইউনিয়নের চান্দরাটি গ্রামের জালাল উদ্দিনের মেয়ে ৩ সন্তানের জননী ঝুমা আক্তারের। বিয়ের প্রায় ১৫ বছর যাবত স্বামী, সন্তান নিয়ে সংসার ভালোই কাটছিল ঝুমা আক্তারের। কিন্তু কয়েক বছর যাবত তার স্বামী হিরণ মিয়ার সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল ভাসুর শাহজাহান ও জ্যা বিলকিছ বেগমের। এ নিয়ে গ্রামে একাধিকবার সালিশ বৈঠক হয়। কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি।

ঘটনার দিন গত ৫ মে রাতে বাড়িতে হঠাৎ চিৎকার শুনে স্থানীয় প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূ ঝুমা আক্তারকে উদ্ধার করে প্রথমে গফরগাঁও হাসপাতাল এবং পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

নিহতের বড় ভাই কামরুল ইসলাম আপেল অভিযোগ করে বলেন, ‘জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ভাসুর শাহজাহান ও তার স্ত্রী বিলকিস বেগম ঘরে আটকে রেখে আমার ছোট বোন ঝুমার শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।’

নিহত ঝুমার স্বামী হিরণ মিয়ার অভিযোগ করে বলেন, ‘জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রায়ই ভাই শাহজাহান, ভাই বউ বিলকিছ ও বোনেরা ঝগড়া করত। আমার সম্পত্তি দখলে নিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিতে চায় তারা। আমার স্ত্রী ঝুমাকে হত্যার হুমকি দিত। এরা ষড়যন্ত্র করে আমার স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে মেরেছে। আমি আমার স্ত্রীর এই মর্মান্তিক হত্যার ঘটনায় বিচার চাই।’

এব্যাপারে গফরগাঁও থানার ওসি এ.কে.এম মাহাবুব আলম জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫