এই গরমে নিরাপদে ফলমূল খাওয়ার উপায়

সুদিপ্ত কুমার নাগ

এখন বাজারে উঠেছে বিভিন্ন রকমের ফলমূল। যেমন আম, লিচু, তরমুজ, বাঙ্গি, ডাব ইত্যাদি। কিন্তু এসব ফলমূলে মেশানো রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফরমালিন। এই গরমে কিভাবে নিরাপদে এসব ফলমূল খাবেন, এবার সেই উপায়গুলো দেখিয়ে দিচ্ছেন সুদিপ্ত কুমার নাগএখন বাজারে উঠেছে বিভিন্ন রকমের ফলমূল। যেমন আম, লিচু, তরমুজ, বাঙ্গি, ডাব ইত্যাদি। কিন্তু এসব ফলমূলে মেশানো রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফরমালিন। এই গরমে কিভাবে নিরাপদে এসব ফলমূল খাবেন, এবার সেই উপায়গুলো দেখিয়ে দিচ্ছেন সুদিপ্ত কুমার নাগ
১. দোকানে যেয়ে যেকোনো ফল কেনার আগে সেই ফলগুলোর কোনো অংশ ওই দোকানদারকে খেতে দিতে হবে। যদি দোকানদার ওই ফল খায় তাহলে বুঝতে হবে যে ওই সব ফলে ফরমালিন নাই। আর যদি দোকানদার ওই ফল খেতে রাজি না হয় তাহলে বুঝতে হবে যে ওই ফলগুলোতে ফরমালিন আছে এবং এসব ফলমূল কেনা যাবে না।২. যেহেতু এখন আমের সিজন তাই সরাসরি আম বাগানে যেয়ে আম কিনে আনা যেতে পারে। ফলে ফরমালিনমুক্ত খাঁটি টাটকা আমও পাওয়া যাবে আবার আম বাগানও ঘোরা হবে।৩. ফলের দোকানে যেয়ে দোকানদারকে বলতে হবে যে, আমি সিআইডি। যত ফরমালিন মেশানো ফল আছে, সব তাড়াতাড়ি বের করো নাহলে একদম জেলে ঢুকায় দিমু। এর ফলে ওই দোকানে ফরমালিন মেশানো ফল থাকলে দোকানদার সেগুলো দেখায় দিবে নাহলে কিছু বখশিশ দেবে। এই উপায় অবলম্বন করলে ফরমালিনমুক্ত ফল না পেলেও ঠিকই বখশিশ পাওয়া যাবে।৪. এই গরমে অনেকেই ডাব খায় কিন্তু দেখা যায় যে, বেশির ভাগ ডাবে এমন কিছু ওষুধ মেশানো থাকে যে, ডাব খাওয়ার কিছুণ পরেই সে ব্যক্তি অজ্ঞান হয়ে যায় এবং অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে। তাই এ েেত্র ডাব কেনার পর প্রথমে ডাবওয়ালাকে এক ঢোক ডাব খেতে দিতে হবে। যদি সে ডাব খায়, তাহলে কোনো সমস্যা নাই আর যদি সে ডাব না খায় তাহলে বুঝতে হবে যে, এই ডাবে কোনো ঝামেলা আছে।৫. বিশ্ববিদ্যালয়ের শিার্থীরা রাতের বেলা চুপ করে ক্যাম্পাসের মধ্যে থেকে ডাব, আম, লিচু, কাঁঠাল, খেজুর এসব চুরি করে খাওয়ার উপায় অবলম্বন করতে পারে। এর ফলে টাটকা ফলমূল তো খাওয়া হবেই, সেই সাথে ক্যাম্পাসের ফলমূলগুলোরও সদ্ব্যবহার করা হবে! (কেউ এসব চুরি করতে যেয়ে ধরা পড়লে কিন্তু কেউ দায়ী থাকবে না!)

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.