ঢাকা, বুধবার,২৪ মে ২০১৭

স্বাস্থ্য

চুল যখন ঝরে

ডা: ওয়ানাইজা রহমান

১৬ মে ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৪:৩৩


প্রিন্ট

স্বাস্থ্যোজ্জ্বল সুন্দর চুল আমরা সবাই চাই। নানা রকম দূষণ, মানসিকচাপ, অনিয়মিত খাদ্যগ্রহণ এবং অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, নানারকম অসুখ কিংবা ব্যক্তিগত কারণে বর্তমানে অনেক অল্প বয়সীরই চুল ঝরে যাচ্ছে। চুল ঝরে যাচ্ছে কিংবা টাক সমস্যা নিয়ে যারা কথা বলেন তারা নিচের সমস্যাগুলোর কথা সাধারণত বলে থাকেন।
- চুলের গোড়ায় ময়লা জমে।
- এক দিন চুল শ্যাম্পু না করলে তেল তেল ভাব হয়।
- মাথা চুলকায়।
- চুলের গোড়ায় ছোট ছোট গোটা এবং ব্যথা হয়।
- সাদা সাদা খুশকির গুঁড়া দেখা যায়।
- চুলের আগা দ্বিখণ্ডিত হয়ে যায়।
- চুলে রুক্ষ ভাব থাকে।
- চুল লালচে হয়ে যাচ্ছে।
Ñ চুলের গোড়ায় ব্যথা হয়।
এ ধরনের সমস্যার কারণগুলো হচ্ছে-
- চুল ঠিকমতো পরিষ্কার না রাখা।
Ñ ছত্রাকের সংক্রমণ টিনিয়া কেপিটিস
Ñ অগমিনেট ফলিকুলাইটিস
Ñ খুশকির সংক্রমণ
Ñ ডিটামিনের অভাব
Ñ রক্তস্বল্পতা
Ñ চুলের সঠিক যত্ন না হওয়া
Ñ নানা রকম কেমিক্যালের ব্যবহার
Ñ হরমোনের তারতম্য
Ñ সেবোরিক ডার্মাটাইটিস
Ñ এন্ড্রোজেনিক এলোপিসিয়া বা বংশগত
চুলের সঠিক যত্ন ও পুষ্টির অভাবে চুল পড়ে যায়। খুব সাধারণ নিয়মে চুলের কিছু যত্ন করলে চুল ভালো থাকে। এক দিন অন্তর চুল পরিষ্কার করা প্রয়োজন। ভেজা চুল আঁচড়ানো ঠিক নয়। অতিরিক্ত আঁচড়ানোও ঠিক নয়। খাদ্যাভাস এখানে একটি বড় ব্যাপার। ফল, শাকসবজি, ডিম, দুধ নিয়মিত খাওয়া প্রয়োজন।
চুল প্রোটিন দিয়ে তৈরি। তাই খাদ্যতালিকায় প্রোটিন রাখা প্রয়োজন। ওজন কমানোর জন্য ডায়েটিং করার সময়ও এ ব্যাপারে লক্ষ রাখা প্রয়োজন। প্রয়োজনীয় ক্যালসিয়াম, আয়রন ও অন্যান্য ভিটামিন খাওয়া হচ্ছে কি না লক্ষ রাখুন। কিছু ওষুধ দীর্ঘ দিন সেবনের ফলেও চুল ঝরতে পারে। যেমন গাউট কিংবা আর্থাইটিসের ওষুধ, মানসিক অবসাদের ওষুধ, এ ছাড়া ক্যান্সার কেমোথেরাপি। মনে রাখবেন প্রতিদিন ১০০টি চুল ঝরে পড়া স্বাভাবিক। কিন্তু এর থেকে বেশি মনে হলে সর্তক হন। বর্তমানে চুল পড়ার আধুনিক চিকিৎসা আছে। কম বয়সে চুল পড়লে অবশ্যই চিকিৎসা প্রয়োজন। কারণ এতে চুল ঝরা অন্তত বন্ধ হবে। মনে রাখতে হবে চুল ঝরা বন্ধ হলে আপনার মাথায় টাক বাড়বে না। আর নতুন চুল গজানোর জন্যও একটু ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে। ফিনাস্টেরয়েড নামের ওষুধ ব্যবহার করে ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে। তবে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবহার করতে হয়। চুল ঝরতে শুরু করলে অবহেলা না করে সঠিক চিকিৎসা ও যত্ন নিন।

লেখিকা : সহযোগী অধ্যাপিকা, ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ। চেম্বার : দি বেস্ট কেয়ার হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ২০৯/২, এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা।
ফোন : ০১৬৮২২০১৪২৭

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫