২২ মে ঢাকা-খুলনা-কলকাতা রুটে বাস চলাচল শুরু

নয়া দিগন্ত অনলাইন

আগামী ২২ মে থেকে ঢাকা-খুলনা-কলকাতা রুটে বাস চলাচল শুরু হবে।

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) সহযোগিতায় বেসরকারি গ্রিনলাইন পরিবহন ঢাকা থেকে এ সার্ভিস চালু করছে।

বিআরটিসির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ২২ মে সোমবার সকাল ৭টার দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে বাসটির এ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন।

১৫ মে এ রুটে বাস চলাচলের কথা থাকলেও ভারতীয় কর্তৃপক্ষের প্রস্তুতি কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় আরো এক সপ্তাহ পিছিয়ে গেছে।

গ্রিনলাইন পরিবহনের জেনারেল ম্যানেজার আব্দুস সাত্তার বাসসকে জানান, মাওয়া হয়ে কলকাতায় যাওয়া এটাই হবে প্রথম কোনো বাস সার্ভিস। পদ্মা সেতু চালু হলে সময় কমে যাবে। মাওয়া হয়ে সড়কপথে দূরত্ব একটু বেশি হলেও সময় কম লাগবে। বাসটি ঢাকা থেকে মাওয়ায় আসবে মাত্র আড়াই ঘণ্টায়। আর ঢাকা থেকে ৮ ঘণ্টা লাগবে খুলনা হয়ে বেনাপোল যেতে। আরও দুই ঘণ্টায় সরাসরি কলকাতা। ঢাকা থেকে যে বাসে রওয়ানা হবেন যাত্রী সেই একই বাসে কলকাতা নামবেন। যাত্রাপথে কোনো পরিবর্তন করতে হবে না।

তিনি বলেন, গ্রিনলাইন পরিবহন ও বিআরটিসির যৌথ উদ্যোগে সপ্তাহে একদির পর পর এ বাস ঢাকা-খুলনা-কলকাতার মধ্যে সরাসরি চলাচল করবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

গ্রিনলাইন বাস সার্ভিস সূত্র জানায়, প্রতি সোম, বুধ ও শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় কমলাপুর বিআটিসি বাস টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যাবে। বেলা দেড়টায় বাসটি খুলনায় আসার পর যাত্রীদের খাবার ও বিশ্রামের জন্য ২০-২৫ মিনিট সময় দেয়া হবে। নগরীর রয়্যাল মোড় থেকে বেলা ২টায় বাসটি কলকাতার উদ্দেশে রওনা হবে। বেনাপোলে পৌঁছাবে বিকেল ৪টায়। দু’পারের ইমিগ্রেশন ও কাস্টমসের কাজ শেষ করে রাত ৮টার দিকে কলকাতার সল্টলেক করুণাময়ী আন্তর্জাতিক বাস টার্মিনালে গিয়ে পৌঁছবে। আর কলকাতার সল্টলেক করুণাময়ী বাস টার্মিনাল থেকে প্রতি মঙ্গল, বৃহস্পতি ও শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় ঢাকার উদ্দেশে ছাড়বে। রাত ৮টার দিকে বাসটি ঢাকায় এসে পৌঁছেবে।

গ্রিনলাইন পরিবহনের বেনাপোল অফিসের ম্যানেজার রবীন্দ্রনাথ রায় জানান, কলকাতাগামী পরিবহনটি ৪০ সিটের। ঢাকায় ৩৬টি এবং খুলনা থেকে মাত্র ৪টি আসন বরাদ্দ করা হয়েছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.