ঢাকা, শুক্রবার,২০ অক্টোবর ২০১৭

আমার ঢাকা

ঢাকার মেধাবী শিক্ষার্থীদের সামাজিক আন্দোলন

মানুষের জন্য স্কার্স

মেহেনাজ বিনতে তৌহিদ

০৯ মে ২০১৭,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

তারুণ্যের হাত ধরে এগিয়ে যাবে জাতি। তাদের চোখেই সাধারণ মানুষ দেখবে স্বপ্নের ঝিলিক। আর সেই তারুণ্যকেই বিপথগামিতার হাতছানি থেকে রুখতে, দেশমাতৃকার অবহেলিত জনগোষ্ঠীর সুখ-দুঃখের অংশীদার হতে তরুণেরাই গড়ে তুলেছে তাদের অনন্য উদ্দীপক সংগঠন ‘স্কার্স’। ঢাকার স্বনামধন্য স্কুল-কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সংগঠনটি এরই মধ্যে পেয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। নিজেদের গড়তে পেরেছে গণমানুষের নির্মোহ বন্ধু হিসেবে।
দিনটি বেশি পুরনো নয়। ২০১৬ সালের ৯ মার্চ ক’জন শিক্ষার্থীর উদ্যোগের ফসল এই স্কার্স। সেদিন যাদের হাত ধরে সংগঠনটির যাত্রা তাদের মধ্যে ইশমাম আফরিদ ইসলাম, তৌফিক উল আলম ও ফাহরিসা ইসলামের নাম অনস্বীকার্য। মূলত রাজধানীর শ্রেষ্ঠতম বিদ্যাপীঠ উত্তরা রাজউক মডেল কলেজের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণেই এ সংগঠনের এগিয়ে চলা। দিন বাড়ার সাথে সাথে ফেসবুক পেজের বদান্যতায় (https://www.facebook.com/teamscars3) স্কার্স এখন প্রথম সারির সেবাকার্যক্রমে পরিণত হয়েছে। দরিদ্রদের মধ্যে খাদ্য, শীতবস্ত্র বিতরণ, ঈদের পোশাক ও খাবার বিতরণ, ইফতারসামগ্রী বিতরণ, শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নকরণ ইত্যাদি কার্যক্রমে তাদের সফলতা ইতোমধ্যে গণমাধ্যমে প্রশংসা কুড়িয়েছে। বিগত ২০১৬ সালে তারা ইফতার ফর এভরিওয়ান, ফিট দ্য পুওর, ঈদ ফর এভরিওয়ান, অ্যালিভিয়েট উত্তরা, ওয়ার্মদ ফর এভরিওয়ান সাফল্যজনকভাবে বাস্তবায়ন হয়েছে। এবারো তারা হাতে নিয়েছে ইফতার ফর এভরিওয়ান-২০১৭ কার্যক্রম। আগামী ১৯ ও ২০ মে স্কার্স সদস্যরা ফান্ড রেইজিংয়ের জন্য বেইলি রোড, ধানমন্ডি, গুলশান, বনানী, উত্তরা ও গাজীপুরে কাজ করবে। এতে রাজউক উত্তরা স্কুল-কলেজের কয়েক শ’ শিক্ষার্থী অংশ নেবে। রমজানের প্রথম সপ্তাহে উত্তরা, রায়েরবাজার, খিলক্ষেতসহ শহরের বিভিন্ন বস্তি ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে এক হাজার ইফতারের প্যাকেজ বিতরণ করবে। প্রতিটি প্যাকেটে পাঁচ সদস্যের পরিবারের ১০ দিনের জন্য পর্যাপ্ত খাদ্যসামগ্রী থাকবে। অংশগ্রহণে আগ্রহীদের উল্লিখিত লিংকে যোগাযোগের অনুরোধ জানানো হয়েছে (https://www.facebook.com/events/732889100214410)|।
স্কার্সের এ কার্যক্রমে সাধারণ ও বিত্তবান নাগরিকদের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। এর মধ্যে মাশরিকি টেক্সটাইলস লিমিটেড, কে সি হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক, মিনাবাজার অন্যতম। সংগঠনটি এ ধরনের সহযোগিতার পাশাপাশি দরিদ্র মানুষকে স্বাবলম্বী করে তোলার জন্য তাদের অটোরিকশা ক্রয়, গ্রামের বিধবা মহিলাদের টিনের ঘর নির্মাণ, আসবাবপত্র ক্রয়, গাভী ও বাছুর ক্রয়, কন্যাদায়গ্রস্ত বাবাকে আর্থিক সহায়তা ছাড়াও বাল্যবিয়ে বন্ধে অন্যান্য উদ্যোগ গ্রহণ করে আসছে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, স্কার্সের সাথে জড়িতদের প্রত্যেকেই নিজ নিজ শিক্ষা ক্ষেত্রে মেধার স্বাক্ষর রেখে চলেছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫