ঢাকা, বুধবার,২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

সংগঠন

সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনতে সরকারি উদ্যোগ নেই : ইলিয়াস কাঞ্চন

নিজস্ব প্রতিবেদক 

০৮ মে ২০১৭,সোমবার, ১৫:০৫ | আপডেট: ০৮ মে ২০১৭,সোমবার, ১৬:১২


প্রিন্ট

নিরাপদ সড়ক চাই এর চেয়ারম্যান চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেছেন, সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনতে সরকারি পর্যায়ে উদ্যোগ নেই।

আজ নিরাপদ সড়ক চাই কেন্দ্রীয় কমিটির আয়োজনে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে প্রেস ব্রিফিংয়ে একথা বলেন ইলিয়াস কাঞ্চন।

আজ সোমবার এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহের কর্মসূচির শুরু করে সংগঠনটি।

প্রেস ব্রিফিং এ উপস্থিত ছিলেন নিসচা কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব শামীম আলম দীপেন, ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসান-উল হক কামাল, যুগ্মমহাসচিব লিটন এরশাদ, বেলায়েত হোসেন খান নান্টু ও লায়ন গনি মিয়া বাবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে আজাদ ও শেখ আবদুর রহমান, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয়, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ফারিহা ফাতেহ, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক কানিজ ফাতেমা মঞ্জুলী কাজী, দফতর সম্পাদক মিজানুর রহমান, সহদফতর সম্পাদক সাবিনা ইয়াসমিন, দুর্ঘটনা অনুসন্ধান বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুর রহমান, কার্যনির্বাহী সদস্য সৈয়দ খায়রুল আলম, আবু বকর সিদ্দীক রাব্বী প্রমুখ।

এতে জানান হয় যে, আজ থেকে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র আয়োজনে সাত দিনব্যাপি সড়ক নিরাপত্তা কর্মসূচি শুরু হয়েছে। সারাবিশ্বে সড়ক দুর্ঘটনা জিরো টলারেন্সে নামিয়ে আনতে জাতিসংঘ কয়েক বছর ধরে সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ পালন করে আসছে। বাংলাদেশেও জাতিসংঘের প্রতিপাদ্য বিষয়ের আলোকে নানা কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। জাতিসংঘ কর্তৃক ঘোষিত এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘ঝধাব খরাবং: ঝষড়উিড়হি’ এই স্লোগানেই ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডঐঙ)’ এর তত্ত্বাবধানে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই এই সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহের কর্মসূচি পালিত হবে।

এরই ধারাবাহিকতায় নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহটি পালনের জন্য দেশের সর্বত্র ‘করষষ ঝঢ়ববফ, ঘড়ঃ খরাবং’, ‘গতি কমাও, জীবন বাচাঁও’ এই শ্লোগানে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

এতে লিখিত বক্তব্যে ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন, ২০০৪ সাল থেকে জাতিসংঘ ঘোষিত ‘সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ’ পালন হলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশ যেখানে জাতিসংঘের প্রতিপাদ্য বিষয়ের আলোকে কাজ করে সড়ক দুর্ঘটনাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে সফলতা দেখিয়ে আসছে, সেখানে আমাদের দেশে সরকারি পর্যায়ে এই ব্যাপারে মাথা ব্যাথা নেই বললেই চলে। জাতিসংঘ ঘোষিত কোন ‘সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ’ এ সরকারি পর্যায়ে পালন করার উদ্যোগ দেখা যায়নি। অথচ জাতিসংঘের বিভিন্ন দিবস পালনে সরকারি উদ্যোগ পরিলক্ষিত হলেও ‘সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ’ পালনে কেন এই অনীহা প্রশ্ন আমার? কারণ জাতিসংঘের এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাদেও আমরা এলিটশ্রেণীর দেশ বলে থাকি তাদের মধ্যে ফ্রান্স, সুইজারল্যান্ড, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, বৃটেনসহ ইউরোপীয় অনেক দেশই সড়ক দুর্ঘটনা সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে এসেছে। বিশেষ করে সুইডেন সড়ক দুর্ঘটনাকে জিরো টলারেন্সে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। এমনকি গতি নিয়ন্ত্রণকে প্রাধান্য দিয়ে আমেরিকার নিউইয়র্ক এবং বৃটেন জনগণের ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। যার সুফল তারা পেতে শুরু করেছে।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫