ঢাকা, শুক্রবার,২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

কর্পোরেট দিগন্ত

রিহ্যাবের অন্যরকম আয়োজন

আলমগীর কবির

০৮ মে ২০১৭,সোমবার, ০০:০০


প্রিন্ট

দিনব্যাপী বনভোজন ও পিঠা উৎসবে শিশু-কিশোরদের বিনোদনের জন্য ছিল পুতুলনাচ, বানরখেলা, বাইস্কোপ। সকালে সবার জন্য পান্তা-ইলিশ ছাড়াও সারা দিন ছিল নানা মুখরোচক খাবার। অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য শিল্পীদের একক সঙ্গীত পরিবেশনের পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয় মনোমুগ্ধকর
ফ্যাশন শো লিখেছেন আলমগীর কবির

রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) বার্ষিক বনভোজন ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় সম্প্রতি দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন (কাজল) এবং সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুন্নবী চৌধুরী (শাওন), এমপি বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে বার্ষিক বনভোজন ও পিঠা উৎসব উদ্বোধন করেন। বাংলা নববর্ষকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত হয় বৈশাখী ও বাউলসঙ্গীত। দলীয় নৃত্য, জাদু ও কৌতুক পরিবেশন করা হয় উৎসবে।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুন্নবী চৌধুরী (শাওন) এমপি। বৈশাখী উৎসবকে সার্বজনীন উল্লেখ করে তিনি বলেন, বৈশাখী অনুষ্ঠানমালা আমাদের ঐতিহ্যের অহঙ্কার। বাংলা নববর্ষকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত বার্ষিক বনভোজন ও পিঠা উৎসব একঘেঁয়েমি জীবনযাত্রা থেকে বের করে সবার মধ্যে ভ্রাতৃত্ববোধ ও আত্মার সম্পর্ক সৃষ্টি করবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন। তিনি বলেন, আমাদের দেশে একমাত্র বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠানমালা ধর্ম-বর্ণ-জাতি নির্বিশেষে সবাই আনন্দের সাথে উদযাপন করে। বার্ষিক বনভোজন ও পিঠা উৎসব আধুনিক জীবনের অসহনীয় ব্যস্ততা আর দিনযাপনের গ্লানির মধ্যে হাঁপ ছাড়ার অবকাশ দিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য এ এম নাইমুর রহমান, শরীয়তপুর-৩ এর সংসদ সদস্য নাইম রাজ্জাক এবং ময়মনসিংহ-৯ এর সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল। এ ছাড়া রিহ্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট (প্রথম) লিয়াকত আলী ভূঁইয়া, প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া কমিটির কো-চেয়ারম্যান কামাল মাহমুদসহ রিহ্যাব পরিচালনা পর্ষদের বিভিন্ন পরিচালক ও কালচারাল স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
দিনব্যাপী এ বনভোজন ও পিঠা উৎসবে শিশু-কিশোরদের বিনোদনের জন্য ছিল পুতুলনাচ, বানরখেলা ও বাইস্কোপ। সকালে সবার জন্য পান্তা-ইলিশ ছাড়াও সারা দিন ছিল নানা মুখরোচক খাবার। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য শিল্পীদের একক সঙ্গীত পরিবেশনার পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয় মনোমুগ্ধকর ফ্যাশন শো। বিভিন্ন ভাগে শিশু-কিশোরসহ বড়দের জন্য ছিল কয়েক ধরনের র‌্যাফল ড্র। সবশেষে সঙ্গীতের মূর্ছনায় সবাইকে মাতিয়ে তোলেন নগরবাউলের জেমস। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কালচারাল কমিটির চেয়ারম্যান মো: জহির আহমেদ।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫