ঢাকা, বুধবার,২৪ মে ২০১৭

রকমারি

সবুজ পৃথিবী গড়ব বলে

শওকত আলী রতন

০৬ মে ২০১৭,শনিবার, ১৮:৩৮


প্রিন্ট

যেকোনো ভালো উদ্যোগ নিয়ে সামনে এগিয়ে চলার মানসিকতাই হতে পারে আগামীর স্বপ্নীল সুন্দর একটি বাংলাদেশের। যে বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখে এ দেশের প্রতিটি মানুষ। হয়তো সেদিন খুব বেশি দূরে নয় যে, ছোট ছোট ভালো কিছু উদ্যোগ বদলে দেবে এ দেশকে। এ জন্য দরকার দৃঢ় প্রত্যয় ও আত্মনিবেদিত কর্মী। তাহলেই দ্রুত এগিয়ে যাবে আমাদের এই সোনার বাংলা।
সে সুন্দরের স্বপ্ন নিয়ে ঢাকার দোহার উপজেলার ঐহিত্যবাহী বিদ্যাপীঠ জয়পাড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৯৫ সালের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা হাতে নিয়েছেন সমাজ পরির্তনের নানামুখী উদ্যোগ। বর্তমানে এই ব্যাচের শিক্ষার্থীরা পেশাগত কারণে নানা কর্মব্যস্ততার মধ্যে সময় কাটালেও সামাজিক দায়বদ্ধতা ও জনগণের মধ্যে সচেতনতা গড়ার কাজ করে যাচ্ছেন কয়েক বছর ধরে। তারই ধারাবাহিকতায় ২৮ এপ্রিল শুক্রবার নিজেদের স্মৃতিবিজড়িত প্রতিষ্ঠান জয়পাড়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে গাছের চারা বিতরণ, রোপণ ও বিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে বই উপহার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই ব্যাচের প্রতিটি শিক্ষার্থী যেন তারুণ্যের প্রতীক। তাদের কাজের গতিশীলতায় মুগ্ধ এলাকার সবাই। সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন সাধ্যমতো।
এ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে শুক্রবার কোমলমতি শিক্ষার্থীরা গঠনমূলক কিছু ভালো কথা শোনার জন্য ছুটে আসেন স্কুলে দু’টি বিদ্যালয়ের দুই হাজার শিক্ষার্থী। সমবেত স্থলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পদচারণায় উচ্ছ্বসিত হয়ে ওঠে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ। জয়পাড়া পাইলট ও বেগম আয়েশা বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থীর হাতে বিভিন্ন ফলের গাছের চারা তুলে দেয়া হয়। চারাগাছ হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীদের চোখেমুখে ফুটে ওঠে আগামী দিনের স্বপ্ন। এ সময় দোহার উপজেলা কমিশনার ভূমি মোজাম্মেল হক রাসেল শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, একটি চারাগাছ রোপণের অর্র্থ আগামী সুন্দর স্বপ্নের বীজ বপন করা। আর্থিক দৈন্যের দিনে একটি গাছ হতে পারে বিপদের সময় মানুষের প্রকৃত বন্ধু। গাছ লাগানোর পাশাপাশি গাছের পরিচর্র্যা করতে হবে। তিনি বলেন, প্রাক্তান শিক্ষার্র্থীরা যে উদ্যোগ নিয়েছেন এটি অবশ্যই একটি প্রশংসনীয়। এদের মতো করে অন্যরা এগিয়ে এলে আমাদের বনায়ন আরো সমৃদ্ধিশালী হবে। সবুজে ভরে আমাদের এই সোনার বাংলাদেশ। এই ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সেবামূলক কর্মকাণ্ডের ধারাবাহিকতা যাতে বজায় থাকে সে জন্য যদি কোনো ধরনের সহযোগিতার প্রয়োজন হয় তবে আমি আমার পক্ষ থেকে তাই করব। একজন শিক্ষার্থীর অভিভাবক বলেন, শিক্ষার্থীদের মাঝে গাছের চারা বিতরণের মধ্য দিয়ে তারা আরো দায়িত্বশীল হবে, অন্য দিকে আমরা সবুজ একটি বাংলাদেশ পাবো। এ ধরনের কাজ বেশি বেশি হলে সবুজের সমারোহে ভরে উঠবে চারদিক। পরে দোহার উপজেলার পদ্মাতীরবর্তী এলাকা মৈনটে গাছের চারা রোপণ করা হয়। এ সময় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জয়পাড়া পাইলটট উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এস খালেক, বেগম আয়েশা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কুলসুম বেগম, সাবেক শিক্ষক হায়াত আলী মিয়া, আব্দুর রহমান আকন্দ, পৌর কাউন্সিলর মো: আলমাছ উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলমসহ ৯৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী আতিক, অমিতাভ অপু, বিদ্যুৎ, কিবরিয়া, আজিজুল, সসীম, আজমির, জাহাঙ্গীর, সোহেল, নাসির, বাবুল, হানিফ ও কাসেম উপস্থিত ছিলেন। এ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এর আগে শিক্ষাবৃত্তি, শীতবস্ত্র বিতরণ, বন্যার্তদের ত্রাণ এবং অসহায় ও গরিবদের মাঝে ফ্রি চিকিৎসা ও ওষুধ বিতরণ করেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫