ঢাকা, শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭

শেষের পাতা

খতমে বুখারি মাহফিলে আল্লামা শফী

কওমি আলেমদের হীনম্মন্যতায় ভোগার দিন শেষ

২২ এপ্রিল ২০১৭,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট
দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার খতমে বুখারির দরসদান শেষে দোয়া পরিচালনা করছেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী : নয়া দিগন্ত

দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার খতমে বুখারির দরসদান শেষে দোয়া পরিচালনা করছেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী : নয়া দিগন্ত

জামিয়া দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার দাওরায়ে হাদিসের খতমে বুখারি ও দোয়া মাহফিলে হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী বলেছেন, একজন ঈমানদার মুসলমান কখনোই অন্যায় ও খারাপ কাজে জড়িত হতে পারে না। আর মুসলমানদের যেকোনো ভালো কাজের ইহ-পরকালীন সফলতার জন্য অবশ্যই নিয়ত ও উদ্দেশ্যকে বিশুদ্ধ করতে হবে এবং নীতি-আদর্শে অবিচল থাকতে হবে। তাহলে মুসলমানদের কাজে ইহকালীন সফলতা যেমন বয়ে আনবে, তেমনি পরকালীন জিন্দেগিও শান্তিময় হবে। ইসলাম কখনোই মুসলমানদের ক্ষতিকর ও লক্ষ্যহীন কাজের অনুমোদন দেয় না। সুতরাং কোনো মুসলমানকে যদি খারাপ ও অসৎকাজে মশগুল দেখা যায়, বুঝতে হবে তার মুসলমানিত্বে এবং ইসলামের উপর দৃঢ় বিশ্বাস ও অবিচল আস্থায় ত্রুটি রয়েছে। তাই কারো দ্বারা অসৎ ও বিশৃঙ্খল কাজের প্রকাশ পেলে, সেটাকে ইসলাম ও মুসলমানদের সাথে সম্পৃক্ত করা অন্যায্য ও অবিচার হবে।
আল্লামা শাহ আহমদ শফী কওমি মাদরাসা শিক্ষার সনদকে সরকার কর্তৃক মাস্টার্স (ইসলামিক স্টাডিজ এবং আরব) সমমান প্রদান করায় মহান আল্লাহ শোকরিয়া আদায় করে তরুণ আলেমদের উদ্দেশ্যে বলেন, কওমি আলেমদের হীনম্মন্যতায় ভোগার দিন শেষ হয়েছে। এখন আপনাদের শিক্ষা সরকারিভাবেও মর্যাদা পেয়েছে। সুতরাং ছাত্র জীবনের দীর্ঘ সাধনার মাধ্যমে অর্জিত ইলমকে নানা ক্ষেত্রে আরো কাজে লাগানোর সুযোগ তৈরি হয়েছে। তিনি বলেন, নানা পর্যায় থেকে কওমি মাদরাসার বিরুদ্ধে এবং আলেমদের আদর্শচ্যুত করার বহুবিদ ষড়যন্ত্র চলতেই থাকবে। এ পর্যায়ে আলেমগণ যদি নীতি ও লক্ষ্যে অবিচল ঐক্যবদ্ধ থাকতে পারেন, তবে কোনো ষড়যন্ত্রই কওমি মাদরাসা শিক্ষার ক্ষতি করতে পারবে না, ইনশাআল্লাহ।
গতকাল শুক্রবার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বৃহৎ কওমি শিক্ষাকেন্দ্র দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার দাওরায়ে হাদিস (স্নাতকোত্তর) সমাপনী বর্ষের হাদিস শাস্ত্রের সর্বনির্ভরযোগ্য গ্রন্থ বুখারি শরিফের শেষ কাসের দরসদানের পর আখেরি মুনাজাত ও বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সমাপনী কাস ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন দেশের প্রবীণ ও শীর্ষ আলেম হেফাজতে ইসলামের আমির, দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক ও শায়খুল হাদিস পীরে কামেল আল্লামা শাহ আহমদ শফী। সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এই দ্বীনি সমাবেশে আগত অতিথি ছাড়াও দাওরায়ে হাদিস (টাইটেল) সমাপনী কাসের প্রায় আড়াই হাজার তরুণ আলেম শরিক ছিলেন।
বিকেল ৩টায় হাদিস শাস্ত্রের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ও বিখ্যাত গ্রন্থ সহিহ বুখারি শরিফের আখেরি দরস আরম্ভ হয়। দরসের শুরুতে আখেরি হাদিসের পুরো সনদসহ মতন পাঠের পর হযরত আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী (দা.বা.) ছাত্রদের উদ্দেশ্যে হাদিসের ওপর বিশদ আলোচনা করেন।
খতমে বুখারির দরস শুরু হওয়ার আগে প্রখ্যাত মুহাদ্দিস আল্লামা হাফেজ মুহাম্মদ জুনায়েদ বাবুনগরী হাদিস শাস্ত্রের ওপর সবিস্তার বক্তব্য রাখেন। তিনি হাদিসের বিশুদ্ধ কিতাব বুখারি শরিফ ও এর রচয়িতা ইমাম আবু আব্দুল্লাহ মুহাম্মদ ইবনে ইসমাঈল বুখারি রাহ:-এর বৈশিষ্ট্য বর্ণনার একপর্যায়ে বলেন, ইমাম বুখারি রাহ: দীর্ঘ ১৬ বছর পর্যন্ত সিয়াম সাধনার মাধ্যমে ১,০৮০ জন ওস্তাদ থেকে অর্জনকৃত ৬ লাখ হাদিস থেকে বাচাই করে ৭,২৭৫টি হাদিস সঙ্কলন করেছেন। প্রত্যেক হাদিস লেখার আগে গোসল করে দুই রাকাত নামাজ আদায় করে আল্লাহ্ তাআলার দরবারে এই দোয়া করতেন, হে আল্লাহ! হাদিস যদি ভুল হয়, তাহলে শুদ্ধতা অন্তরে ঢেলে দিন। রওজায়ে আক্বদাসের পাশে বসে ৩,৩৮৮টি বাব (অধ্যায়) নির্ধারণ করেছেন। আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বাংলাদেশসহ ভারতীয় উপমহাদেশে হাদিস চর্চা ও গবেষণার ইতিহাস তরুণ আলেমদের উদ্দেশ্যে তুলে ধরেন।
দেশের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে তরুণ আলেমদের উদ্দেশ্য করে আল্লামা হাফেজ জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, বর্তমানে দেশে-বিদেশে ইসলাম ও মুসলিমবিরোধী ষড়যন্ত্র ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। নানাভাবে জাতিকে ধর্ম ও আদর্শহীন করে ভোগবাদিতায় নিমগ্ন করার জোর আয়োজন চলছে। ইসলাম ও মুসলমানদের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করা হচ্ছে শিক্ষা ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে। ইসলামের আবশ্যকীয় বিভিন্ন বিধিবিধানের অপব্যাখ্যা করা হচ্ছে। পাশাপাশি ইসলামি শিক্ষা, সংস্কৃতি ও ওলামা-মাশায়েখের বিরুদ্ধে বহুমুখী ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচার চলছে। আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ঈমান ও ইসলামের হেফাজতের লক্ষ্যে ওলামা-মাশায়েখ ও সাধারণ মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ অবস্থানের ওপর গুরুত্বারোপ করে তরুণ আলেমদের উদ্দেশ্য করে বলেন, এমন কঠিন পরিস্থিতিতে ইসলামের শান্তি, সাম্য ও ঐক্যের বাণী জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে আপনাদের সোচ্চার ভূমিকা রাখতে হবে। পাশাপাশি ইসলাম বিদ্বেষী চক্রের অপতৎপরতা এবং ইসলাম ও নৈতিকতা বিরোধী কর্মকাণ্ডের বিষয়েও ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে।
বিদায়ী তরুণ আলেমদের উদ্দেশ্যে আরো বক্তব্য রাখেন হাটহাজারী মাদরাসার মুফতি ও মুহাদ্দিস মাওলানা কিফায়াতুল্লাহ, মাওলানা জসীম উদ্দীন, মুহাদ্দিস মাওলানা ফোরকান আহমদ ও মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী প্রমুখ।
খতমে বুখারি ও দোয়া মাহফিলে জামিয়ার ওস্তাদগণসহ শীর্ষ পর্যায়ের ইসলামি নেতৃবৃন্দ, দেশের প্রত্যান্ত অঞ্চলের ওলামা-মাশায়েখ, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ প্রায় অর্ধ লাখ তৌহিদি জনতা শরিক হন। দরস চলাকালীন সুবিশাল শিক্ষাভবন ও পাশের ছাত্রাবাসের বারান্দায় তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫