ঢাকা, শনিবার,২৯ এপ্রিল ২০১৭

টেলিভিশন

ছয় তারকার চির কুমারী ক্লাব

অভি মঈনুদ্দীন

১০ এপ্রিল ২০১৭,সোমবার, ১৮:২৬


প্রিন্ট

ভিন্নধর্মী গল্প নিয়ে এবার তরুণ নাট্যনির্মাতা তারিক মুহাম্মদ হাসান নির্মাণ শুরু করেছেন তার দ্বিতীয় ধারাবাহিক নাটক ‘চির কুমারী ক্লাব’। এতে ছয়টি ভিন্ন ধরনের চরিত্রে অভিনয় করছেন নওশীন, মৌটুসী, নাজিরা মৌ, নাদিয়া খানম, নাইরুজ সিফাত ও মুনিয়া। তারা ছয়জন যথাক্রমে অভিনয় করছেন সাথী, বন্যা, রচনা, নদী, কলি ও মেরী চরিত্রে। রাজধানীর উত্তরায় একটি শুটিং হাউজে ধারাবাহিকটির শুটিং শুরু হয়েছে।

নাটকটি রচনা করেছেন আহসান আলমগীর এবং প্রযোজনা করেছেন রফিকুল ইসলাম। নাটকটির গল্প প্রসঙ্গে রচয়িতা আহসান আলমগীর বলেন, একটি ছেলে একটি মেয়ে প্রেম করার সময় এত কিছু না ভেবেই প্রেম করে। কিন্তু যখন বিয়ের সময় আসে তখন পারিপার্শ্বিক বিভিন্ন বিষয় চলে আসে। ফলে অনেক সময়ই অনেক ছেলে প্রেমিকার কাছ থেকে কেটে পড়ে, যে কারণে সাথীর জীবনে এমন ঘটলে সাথীর মনে পুরুষবিদ্বেষী মনোভাব সৃষ্টি হয়। আর তাই তার ক্লাবে যারা সদস্য হয় তারা কখনোই প্রেম করতে পারবে না।

নাটকে চিরকুমারী ক্লাবের সভাপতি সাথী চরিত্রে অভিনয় করছেন নওশীন। তার তত্ত্বাবধানেই বাকি পাঁচজন মেয়ে ক্লাবে পরিচালিত হয়ে থাকেন; যে কারণে সাথীর আদেশেই তাদের চলতে হয়।

চরিত্রটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে নওশীন বলেন, অভিনয়ের পথচলায় তো অনেক নাটকেই অভিনয় করেছি। কিন্তু এমন ভিন্ন ধরনের গল্পে কাজ করা হয়ে ওঠেনি। আমি নাটকে সিলেটের আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলেছি। বেশ উপভোগ করছি আমি আমার চরিত্রটি। এতে বন্যা চরিত্রে অভিনয় করছেন মৌটুসী।

মৌটুসী বলেন, যেহেতু এখানে আমাদের ছয়জনকে নিয়েই নাটকের মূল গল্প। তাই আমি আমার অভিনয় ও গেটআপ দিয়ে ভিন্নতা আনার চেষ্টা করছি। আমার চরিত্রটিতে আমি গভীরভাবে মনোযোগ দিয়েই আমাকে আলাদাভাবে বের করে আনার চেষ্টা করছি।

নাটকে রচনা চরিত্রে নাজিরা মৌ অভিনয় করছেন। মৌ বলেন, গল্পটাই মূলত আমাকে আগ্রহী করেছে এতে অভিনয় করার। নাদিয়া খানম বলেন, আমি এতে নদী চরিত্রে অভিনয় করছি। আমরা সবাই কাজটা বেশ আন্তরিকতা নিয়ে করছি।

নাইরুজ সিফাত বলেন, যেহেতু মাত্র এক দিন শুটিং করেছি আমি, তাই খুব বেশি কিছু না বলতে পারলেও এটা বলতে বাধ্য হচ্ছি যে, নাটকের স্ক্রিপ্টটা অসাধারণ। তারিক ভাইয়ের নির্দেশনায় কাজ করে তৃপ্ত আমি।

তারিক মুহাম্মদ হাসান জানান, শিগগিরই ধারাবাহিক এ নাটকটি একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫