জামানতি ঋণের বিপরীতে চেক কেন অবৈধ নয় : হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক

জামানত রাখার পরও ঋণের বিপরীতে ঋণগ্রহীতার কাছ থেকে চেক নেয়া কেন অবৈধ ও এখতিয়ারবহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি এম ফারুকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে এ রুল জারি করেন।
চার সপ্তাহের মধ্যে আইন সচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, যমুনা ব্যাংকের এমডি, কুমিল্লার সংশ্লিষ্ট আদালত ও যমুনা ব্যাংকের লাকসাম শাখাকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
আদালতে রিট আবেদনের পে শুনানি করেন আইনজীবী মো: মিজানুল হক চৌধুরী। সাথে ছিলেন ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান, রেদোয়ান আহমেদ রানজীব ও রোকন উদ্দিন মো: ফারুক। রাষ্ট্র পে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ফজলে রাব্বি খান।
মিজানুল হক বলেন, কুমিল্লার ব্যবসায়ী আবু মো: ২০১২ সালে যমুনা ব্যাংকের লাকসাম শাখা স্থাবর সম্পত্তি জামানত এবং সিকিউরিটি চেক জমা রেখে এক কোটি ২৫ লাখ টাকা ঋণ নেন। পরবর্তীকালে তিনি ঋণখেলাপি হওয়ার পরে ২০১৫ সালে যমুনা ব্যাংক তার বিরুদ্ধে চেক প্রতারণার মামলা হিসেবে পরিচিত এনআই অ্যাক্টে মামলা করে। যে মামলায় কুমিল্লার বিচারিক আদালত গত বছরের ২৬ জুন ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।
এ বিষয়ে স্থাবর সম্পত্তি জামানত থাকা সত্ত্বেও সিকিউরিটি নিয়ে করা মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে এ রিট করা হয়। এ রিটের শুনানি নিয়ে আদালত রুল জারি করেন। একই সাথে কুমিল্লার আদালতে চলমান মামলার কার্যক্রম কেন বন্ধের নির্দেশ দেয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.