ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

শেষের পাতা

ছেলে হত্যার বিচারের দাবিতে এক মায়ের কান্না

নিজস্ব প্রতিবেদক

২১ মার্চ ২০১৭,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ছেলে হত্যার বিচারের দাবিতে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন এক মা। হত্যাকাণ্ডের চার বছর পেরিয়ে গেলেও প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে খুনিরা। হুমকি দেয়া হচ্ছে পরিবারকে। ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর প্রকাশ্য দিবালোকে সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ভিপি আমান উল্লাহ আমান দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হন।
নিহতের মা ফাতেমা খাতুন গতকাল সোমবার রাজধানীতে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে এসে সাংবাদিকদের মাধ্যমে ছেলে হত্যার সুষ্ঠু বিচার পেতে মামলাটি দ্রুত বিচার আইনে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন।
ফাতেমা খাতুন জানান, তার ছেলে আমান উল্লাহ আমান সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের ভিপি ছিলেন। অভ্যন্তরীণ কোন্দলে দুর্বৃত্তরা তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। তিনি অভিযোগ করেন, এ ঘটনার মূল হোতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব। আর কিলিং মিশনে অংশ নেয় তার সহকারী তারিকুল হাসান, আইনুল ইসলাম নান্টা, মাসুম বিল্লাহ শাহীন, কামরুজ্জামান ভুট্টো, মানিকসহ আরো অন্তত সাত-আট জন।
এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের পর মামলাটি সাতক্ষীরায় আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মিটিংয়ে চাঞ্চল্যকর মামলা হিসেবে অনুমোদন হয়। সাতক্ষীরা কোর্টের সরকারি পিপি ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মামলার নথি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। কিন্তু মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হস্তান্তরের আদেশ রহস্যজনক কারণে সাতক্ষীরা আদালতে পৌঁছেনি।
মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে হস্তান্তরের দাবি জানিয়ে ফাতেমা বেগম অভিযোগ করেন, হত্যা মামলার আসামিরা অত্যন্ত প্রভাবশালী হওয়ায় পুলিশ তাদের গ্রেফতার করেনি। তারা প্রভাব খাটিয়ে আদালত থেকে জামিনে রয়েছে। এমনকি হত্যার বিচার চাইতে গিয়ে নিহতের পরিবারই এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। প্রতিনিয়ত তাদের হুমকি দেয়া হচ্ছে।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫