ঢাকা, শুক্রবার,২৩ জুন ২০১৭

শেষের পাতা

দীর্ঘতম সুড়ঙ্গপথ উদ্বোধন এ মাসেই

নয়া দিগন্ত ডেস্ক

২১ মার্চ ২০১৭,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ভারতের দীর্ঘতম সুড়ঙ্গপথটির নির্মাণকাজ শেষ। এবার উদ্বোধনের পালা। চলতি মাসের শেষ দিকেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এর উদ্বোধন করতে পারেন। এ কথা বলেছেন চেনানি নাশিরি টানেলওয়ের নামে এ প্রকল্পটির পরিচালক জে এস রাঠোর। ইতোমধ্যে ওই সুড়ঙ্গপথে সফলভাবে পরীক্ষামূলক ট্রেন চলেছে।
৯ কিলোমিটার দীর্ঘ সুড়ঙ্গপথটির অবস্থান জম্মুর উধমপুর জেলার চেনানি এলাকায়। এটি পাহাড়ি অঞ্চলের মধ্য দিয়ে জম্মু-শ্রীনগর মহাসড়ককে যুক্ত করেছে। প্রকল্পে প্রায় ছয় বছর লেগেছে। ‘টুইন-টিউব’ টানেলটি নির্মাণে তিন হাজার ৭২০ কোটির বেশি রুপি খরচ হয়েছে। এটি ২৮৬ কিলোমিটার লম্বা চার লেনের মহাসড়ক প্রকল্পের অংশ।
সুড়ঙ্গপথটি চালু হলে জম্মু ও শ্রীনগরের মধ্যে দূরত্ব ৩০ কিলোমিটার কমবে। আর ভ্রমণের সময়ও বাঁচবে তিন-চার ঘণ্টা। এর ফলে নয়নাভিরাম উপত্যকায় যাতায়াত পর্যটকদের জন্য আরো সহজ হবে।
নিসার আহমদ নামের এক ট্রাকচালক এ সুড়ঙ্গপথের ভেতর দিয়ে প্রথম গাড়ি চালানোর সুযোগ পাচ্ছেন। তিনি বেজায় খুশি।
ভারতে এ ধরনের দীর্ঘ ও বিশ্বমানের সুড়ঙ্গপথ এটিই প্রথম। এতে বাতাস চলাচল, আগুন নিয়ন্ত্রণ, সঙ্কেত, যোগাযোগ ও বিদ্যুৎব্যবস্থা সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে চলবে। প্রকল্প পরিচালক জে এস রাঠোর বলেছেন, গোটা সুড়ঙ্গপথে ৭৫ মিটার পরপর মোট ১২৪টি সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। টেলি যোগাযোগের ব্যবস্থাও থাকছে। এই সুড়ঙ্গপথে পাঁচ মিটারের বেশি উচ্চতার ভারী মালবাহী গাড়ি বা দাহ্য পদার্থ নিয়ে কোনো কনটেইনার প্রবেশ করতে পারবে না। সুড়ঙ্গপথে গাড়ির সর্বোচ্চ গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ৫০ কিলোমিটার। এই সুড়ঙ্গপথে আছে ‘আপৎকালীন রাস্তাও’। ইন্টারনেট। 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫