গাজীপুরে ইবনে সিনার ২৬ কর্মকর্তা ও কর্মচারী আটক

গাজীপুর সংবাদদাতা

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ২৬ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ গতকাল ভোরে তাদের আটক করে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের এক কর্মকর্তা জানান, সোমবার ভোর ৪টায় ফ্যাক্টরি গেটে এসে পুলিশ পরিচয়ে গেট খুলে দিতে বলা হয়। এ সময় পুলিশের একটি ভ্যান ও তিনটি মাইক্রোবাস ফ্যাক্টরির ভেতরে প্রবেশ করে। পরে থানা পুলিশ, গোয়েন্দা পুলিশ ও লাঠি হাতে কিছু লোকসহ প্রায় ৪০ জনের দল ফ্যাক্টরির সিকিউরিটি গার্ডদের মোবাইল ফোন নিয়ে নেয়। তারা ফ্যাক্টরির সিসি ক্যামেরা ভাঙচুর করে এবং টেলিফোনের তার ছিঁড়ে ফেলে। ওই সময় তারা ফ্যাক্টরিতে কর্মরত পিয়ার আহমেদ, রমজান ফকির, আবদুল বাতেন, জয়নাল ফকির, জাহিদুল ইসলাম, দ্বীন ইসলামসহ ১৪ জন সিকিউরিটি গার্ডকে আটক করে। পরে ফ্যাক্টরির ভেতরে আবাসিক ভবনে গিয়ে ঘুম থেকে উঠিয়ে ম্যানেজার জাকারিয়া, তামিম, ইসমাইলসহ ১২ জন কর্মকর্তাকে আটক করে নিয়ে যায়।
গাজীপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আমির হোসেন জানান, জামায়াত-শিবিরের ২৬ জন নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। তারা নাশকতার পরিকল্পনা করছিল।
এ দিকে, গ্রেফতারের বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ইবনে সিনার দু’জন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে, তারা নিরীহ। যদি তারা জামায়াত-শিবিরের সাথে জড়িত থাকেও, তারা তো কোনো আইন লঙ্ঘনের মতো কাজ করেনি। তারা বলেন, ইতঃপূর্বেও ওই প্রতিষ্ঠানের অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারীকে হেনস্তা করা হয়েছে। স্থানীয় মাস্তানরা একটি ট্রাক ডাকাতি করে নিয়ে গেছে। এখন আরো জুলুম শুরু হয়েছে। তারা বলেন, ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যালস দেশের অন্যতম একটি সেবা প্রতিষ্ঠান। এখানে ভালো মানের ওষুধ তৈরি করা হয়। কোনো অনিয়ম হয় না।
তারা অবিলম্বে গ্রেফতারকৃতদের ছেড়ে দেয়ার ব্যাপারে সরকারের কাছে আবেদন জানান। গ্রেফতারকৃতদের প্রতি যাতে কোনো জুলুম করা না হয়, সে ব্যাপারে দৃষ্টি রাখতে তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.