কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গতকাল সাবেক পররাষ্ট্র সচিব মিজারুল কায়েসের কফিনে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয় : নয়া দিগন্ত
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গতকাল সাবেক পররাষ্ট্র সচিব মিজারুল কায়েসের কফিনে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয় : নয়া দিগন্ত

সাবেক পররাষ্ট্র সচিব মিজারুল কায়েসের দাফন সম্পন্ন

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

সাবেক পররাষ্ট্র সচিব ও ব্রাজিলে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজারুল কায়েসকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এর আগে প্রথমে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এবং পরে গুলশানের আজাদ মসজিদে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এক মাসের ছুটি শেষে গত ৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে ব্রাজিলে ফেরার পরই মিজারুল কায়েস অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর হাসপাতালে ভর্তি হলে কিডনি জটিলতা, শ্বাসকষ্টসহ নানা শারীরিক সমস্যার কারণে তাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) রাখা হয়। সেখানেই ১১ মার্চ তার মৃত্যু হয়।
মিজারুল কায়েস ২০০৯ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত পররাষ্ট্র সচিবের দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৮২ সালের বিসিএস পররাষ্ট্র ক্যাডারের এই কর্মকর্তা ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত হিসেবে যোগ দেয়ার আগে ব্রিটেন, রাশিয়া ও মালদ্বীপের মিশন প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন। সংস্কৃতি ক্ষেত্রেও তার ব্যাপক বিচরণ ছিল।
শহীদ মিনারে প্রথমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে মিজারুল কায়েসের লাশে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তার সহকারী সামরিক সচিব লেফটেন্যান্ট জেনারেল সাইফুল্লাহ। এর পর একে একে সংস্কৃতি ও নাট্যকর্মী, তার সাবেক সহকর্মীরাসহ সর্বস্তরের মানুষ তার প্রতি শ্রদ্ধা জানান।
সেখানে নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, মিজারুল কায়েস দেশের শিল্পী সাহিত্যকে বিদেশীদের কাছে তুলে ধরার চেষ্টা করতেন। তার অকালে চলে যাওয়ায় আমাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে।
ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের ভিসি অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, কায়েস সাহিত্য-শিল্প চেতনার মানুষ ছিলেন। বইমেলায় এলে তিনি এক ব্যাগ বই কিনে নিয়ে যেতেন। শিল্পীসমাজের সাথে আড্ডায় তিনি প্রাণ খুলে হাসি-ঠাট্টা করতেন।
মিজারুল কায়েসের প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, সাবেক রাষ্ট্রদূত আনারুল আলম, সাবেক রাষ্ট্রদূত গোলাম মাহমুদ, বিসিএস ’৮২ ফোরামের সভাপতি সাবেক সচিব মিজানুর রহমান, সাবেক সচিব আবু আলম শহীদ খান, ডা: ফেরদৌস বেগম, শিল্পী মনিরুল ইসলাম, নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান ও বাংলাদেশ শিল্পকলা অ্যাকাডেমির পরিচালক লিয়াকত আলী লাকী শ্রদ্ধা জানান।
প্রথম নামাজে জানাজায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বর্তমান ও সাবেক কূটনীতিকরা অংশ নেন।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.