বাবুল হত্যা মামলা

লাকসামে বিএনপির ৭ নেতাকর্মী জেলহাজতে

লাকসাম (কুমিল্লা) সংবাদদাতা

লাকসামে ২০১৩ সালে অবরোধ চলাকালীন পুলিশ ও অবরোধকারীদের সংঘর্ষে এক রিকশাচালক নিহতের ঘটনায় দায়েরকৃত পৃথক মামলায় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ সাত নেতাকর্মী গতকাল সোমবার আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। কুমিল্লার ৩ নং সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আমলি আদালতের বিচারক কাজী আরাফাত উদ্দিন শুনানি শেষে আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। জেলহাজতে প্রেরণকারীরা হচ্ছেন : পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেন মিলন, পৌরসভা যুবদল সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মানিক, পৌরসভা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার মামুন, যুবদলনেতা ফারুক, আলমগীর ও রাজু।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালে ২৬ নভেম্বর ১৮ দলীয় জোটের নেতৃত্বাধীন অবরোধের সময় লাকসাম দৌলতগঞ্জ বাজারের নোয়াখালী রোডে অবরোধকারীদের সাথে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের একপর্যায়ে বাবুল মিয়া নামে এক রিকশাচালক গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ ঘটনায় নিহত রিকশাচালকের স্ত্রী হালিমা খাতুন বাদি হয়ে পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম খোকনসহ ৩৬ জন এবং লাকসাম থানার এসআই সুখেন্দু বসু ৪৬ জনের নাম উল্লেখ করে উভয় মামলায় অজ্ঞাতনামা প্রায় আরো এক হাজার বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীকে অভিযুক্ত করেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.