ঢাকা, শুক্রবার,২৮ জুলাই ২০১৭

ক্রীড়া দিগন্ত

আবেগই জিতিয়ে দেয় বাংলাদেশকে

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২১ মার্চ ২০১৭,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

হাতুরাসিংহের সাথে যা হয়েছে তা অনেক শ্রীলঙ্কানই মেনে নিতে পারেননি। কুমার সাঙ্গাকারা থেকে শুরু করে রঙ্গনা হেরাথরাও না। তবু চন্দিকা হাতুরাসিংহের আক্ষেপÑ দেশের কাছ থেকে নিয়েছেন অনেক, দিতে পারেননি কিছুই। একসময় দেশের বোর্ড থেকে অবাঞ্চিত হাতুরাসিংহে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে পৌঁছে দিয়েছেন নতুন উচ্চতায়। এবার তো তারই টাইগার দল শ্রীলঙ্কার মাটিতে লঙ্কানদের বুকের ওপর বসেই জয় ছিনিয়ে নিলো।
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ উপলক্ষে মাকে দেখতে পেলেন নিজ দেশেই। বর্তমানে তার স্থায়ী আবাস অস্ট্রেলিয়া। প্রায় বছর তিনেক আগে বাংলাদেশের প্রধান কোচ হওয়ার পর সাবেক এই ব্যাটসম্যান টাইগারদের কোচিং দলকে তো প্রায় লঙ্কানই বানিয়ে ফেলেছেন। তার সাথে ব্যাটিং উপদেষ্টা ও ট্রেনারও লঙ্কান। হাতুরাসিংহের নেতৃত্বে অনেক বছর ক্লাবে খেলা লঙ্কান অধিনায়ক হেরাথ তাই সিরিজের আগে শঙ্কা প্রকাশ করেছিলেনÑ ‘বাংলাদেশের এই কোচের মেধাকেই সবচেয়ে বড় ভয়।’
প্রথম টেস্টে বাজে হার। নানা আলোচনা-সমালোচনা। প্রথম ম্যাচের একাদশে চারটি পরিবর্তন নিয়ে দ্বিতীয় টেস্টে দল নামিয়ে চমকে দেয়া। সেই দল ১৯১ রানের টার্গেট তাড়া করে ৪ উইকেটের জয়। শ্রীলঙ্কাকে ইতিহাসে প্রথমবার টেস্ট হারাল হাতুরার কোচিংহেই। ঘরের শত্রু বিভীষণ মানতে চান না হাতুরাসিংহে। সুযোগ পেলে লঙ্কান দলে কাজ করার ইচ্ছা এখনো পোষণ করেন তিনি। গতকাল ঐতিহাসিক জয় ও সিরিজ ১-১ এ ড্র হওয়ার পর তিনি বললেন, ‘আবেগই আসলে জিতিয়ে দেয় বাংলাদেশকে। এই জয় ছেলেদের প্রাপ্য ছিল। তারা কঠিন পরিশ্রম করেছে। তাদের নিয়ে খুশি আমি। জানতাম আমাদের কিছু পরিবর্তন দরকার। তৃতীয় দিনে লিড নেয়াটা ছিল গুরুত্বপূর্ণ। শেষ বছরে তামিম সব ফরম্যাটেই ভালো খেলেছে। এখন সে সিনিয়র সিটিজেন। মাঠে তা দেখাচ্ছে। এই ছেলেরা একটু বেশি আবেগে ভোগে। তারা একজোট হলেই আবেগকে পেছনে ফেলতে পারে। শীর্ষ পর্যায়ের ক্রিকেটে চাপের মধ্যে এটা কাজে আসে।’
আট বছর আগে চন্দিকা হাতুরাসিংহে ছিলেন শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের কোচ। উঠে আসতে সহায়তা করেছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ, দিনেশ চান্দিমালদের। থিলান সামারাবিরা, রাসেল আরনল্ডরা জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পর হাতুরার মাধ্যমেই নতুন দিকের দিশা পান। ২০০৯ সালে তখনকার শ্রীলঙ্কান হেড কোচ ট্রেভর বেইলিসের সাথেও সহকারী হিসেবে কাজ করেন তিনি। তখন শ্রীলঙ্কায় একটা সিরিজ চলাকালীন টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে অনুমতি নিয়ে কোচিং লেভেল থ্রি করতে অস্ট্রেলিয়া যান। তখনকার লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি ডি এস ডি সিলভা যখন বললেন, হাতুরাসিংহে তার কাছ থেকে অনুমতি নেয়নি। তখনই বিপদে পড়লেন হাতুরাসিংহে। নিষিদ্ধ হলেন দুই বছরের জন্য। তখন অভিমানেই অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস। সেই লোকটিই এখন বাংলাদেশ দলের সৃষ্টিশীল প্রধান কোচ এবং তার দল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শততম টেস্ট বিজয়ী দল।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫