ঢাকা, বুধবার,২২ নভেম্বর ২০১৭

ক্রিকেট

টেস্ট অভিষেকেই নজর কাড়লেন মোসাদ্দেক

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২০ মার্চ ২০১৭,সোমবার, ২১:২০


প্রিন্ট

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার পা পড়েছে বেশ কিছুদিন আগেই। কিন্তু খেলার ধরণ, মেধা আর ঘরোয়া ক্রিকেটের রেকর্ডের কারণেই ক্রিকেট বোদ্ধাদের আকর্ষণ ছিলো মোসাদ্দেক হোসেনের টেস্ট খেলা নিয়ে।


এতদিন তাকে টেস্ট না খেলানোর কারনে টিম ম্যানেজমেন্টের সমালোচনাও করেছেন অনেকে। কেন তাকে নিয়ে সবার এত আগ্রহ টেস্ট অভিষেকেই তার স্বাক্ষর রাখলেন এই তরুণ অলরাউন্ডার।


ফার্স্টক্লাস ক্রিকেটে সাতটি সেঞ্চুরির মধ্যে তিনটিই ডাবল সেঞ্চুরি। যে কারণে লঙ্গার ভার্সনে বাংলাদেশের আদর্শ ক্রিকেটার বলা হয় তাকে। অনেকের মতে মমিনুল হকের পর তিনিই সবচেয়ে ‘কোয়ালিটি টেস্ট প্লেয়ার’। তারপরও সাদা পোশাকে জাতীয় দলে খেলতে টি-২০ ও ওয়ানডের গণ্ডি পেরিয়েই জায়গা পেতে হয়েছে তাকে।


টি-২০ এবং ওয়ানডেতে অভিষেক ম্যাচে জয় না পেলেও টেস্ট ম্যাচ জিতে অভিষেকটা স্মরণীয় করে রাখলেন ময়মনসিংহের এই তরুণ। শততম টেস্টেই ৮৬তম ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক মোসাদ্দেকের। ঐতিহাসিক এই টেস্ট জয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতে নিজের অভিষেকও স্মরণীয় করে রাখলেন ২১ বছর বয়সী ক্রিকেটার।


প্রথম ইনিংসে রেকর্ড গড়া ৭৫ রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে ১৩ রান। দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়তে পারতেন; কিন্তু জয় থেকে মাত্র দুই রান দূরে থাকতেই সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে।

২০১৬ সালে খুলনায় বাংলাদেশের জার্সি গায়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-২০ অভিষেক তার। সে দিন ব্যাট-বল হাতে নজরকাড়া কোনো পারফরম্যান্স করতে পারেননি তিনি। ব্যাট হাতে ১৫ রান আর বল হাতে দুই ওভার বল করেও উইকেটের দেখা পাননি। সে বছরেই সেপ্টেম্বরে ওয়ানডে যাত্রা শুরু। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে প্রথমবার মাঠে নামেন তিনি। ব্যাট হাতে অপরাজিত ৪৫ রান ও বোলিংয়ে নিজের প্রথম বলেই উইকেট তুলে নিয়ে আলো ছড়ালেও জয়ের স্বাদ পাননি।
এরপর অপেক্ষা ছিল সাদা পোশাকের। ৮ ওয়ানডে ও চার টি-২০ খেলা মোসাদ্দেকের টেস্ট অভিষেক ভারতের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টেই হতে পারত। ইমরুল কায়েসের ইনজুরিতে প্রথমবারের মতো টেস্ট দলে ঢুকে পড়লেও টেস্ট ক্যাপ পরা হয়নি তার। তখন সেটি হলে শততম ম্যাচটি কি আর স্মরণীয় হতো!


য়ানডে অভিষেকের প্রথম বলেই পেয়েছিলেন উইকেট। টেস্ট অভিষেকেও রেকর্ড গড়লেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। বাংলাদেশের হয়ে অভিষেকে আট নম্বরে নেমে সবচেয়ে বেশি ৭৫ রান এখন তারই। এর আগে বাংলাদেশের হয়ে টেস্টে আট নম্বরে নেমে ৩৫ রানের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস ছিল প্রয়াত মঞ্জুরুল ইসলাম রানার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাসে সৈকত নবম ক্রিকেটার, যিনি শততম টেস্টে অভিষেক ম্যাচ খেলছেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫