হাবিব-উন-নবী খান সোহেল (ফাইল ফটো)
হাবিব-উন-নবী খান সোহেল (ফাইল ফটো)

বিএনপির সোহেলকে হয়রানি না করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির যুগ্মমহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেলকে সুনির্দিষ্ট মামলা ছাড়া আটক বা হয়রানি না করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো: আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি), র‌্যাবের মহাপরিচালক, ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। সাথে ছিলেন মোস্তফা সরোয়ার সোহান ও এম. মাসুদ রানা।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।

আইনজীবী মাসুদ রানা বলেছেন, সোহেলের বিরুদ্ধে নাশকতার বিভিন্ন ঘটনায় প্রায় দেড়শ’ মামলা রয়েছে। এসব মামলার অনেকগুলো থেকে তিনি উচ্চ আদালতে জামিন পেয়েছেন। কিছু মামলায় বিচারিক আদালত থেকেও জামিন পেয়েছেন তিনি। এর আগেও একবার তিনি সব মামলায় জামিন পেয়ে মুক্তির সময় জেল গেট থেকে গ্রেফতার হয়েছিলেন।

এখন সোহেল আবার সব মামলায় আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন। এ অবস্থায় তাকে আবার গ্রেফতার করা হতে পারে এমন আশঙ্কা থেকেই হাইকোর্টে এই আবেদন করা হয়েছিল। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আদেশ দিয়েছেন, সুনির্দিষ্ট মামলা ও পরোয়ানা ব্যতীত তাকে যেন গ্রেফতার বা কোনোরকম হয়রানি করা না হয়।

গত ১৯ মার্চ হাইকোর্টে এ রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়েছিল। সেই রিটের শুনানি শেষে আদালত গতকাল এই আদেশ দেন।

গত বছরের ৯ অক্টোবর নাশকতার বিভিন্ন মামলায় ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন সোহেল। আদালত জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরপর সব মামলায় জামিন পেয়ে গত ৬ মার্চ মুক্তি পেলেও ফের কারাফটক থেকে আটক করা হয় তাকে। সেই থেকে তিনি কারাগারেই আছেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.