ঢাকা, শুক্রবার,২৬ মে ২০১৭

উপসম্পাদকীয়

স্ম র ণ : সাহিত্যিক কাজী ইমদাদুল হক

২০ মার্চ ২০১৭,সোমবার, ০০:০০


প্রিন্ট

প্রখ্যাত সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ কাজী ইমদাদুল হকের জন্ম খুলনা জেলার গদাইপুর গ্রামে ৪ নভেম্বর ১৮৮২ সালে। তিনি খুলনা জিলা স্কুল থেকে ১৮৯৬ সালে এন্ট্রান্স, ১৮৯৮ সালে কলকাতা মাদরাসা থেকে ইন্টারমিডিয়েট এবং ১৯০০ সালে কলকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে বিএ পাস করেন। কিছু দিন ইংরেজিতে এমএ কোর্সে এবং আইনের ক্লাসে অধ্যয়ন করেন। ঢাকা টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান অধিকার করে বিটি পাস করেন ১৯১৪ সালে। প্রথমে ১৯০৩ সালে কলকাতা মাদরাসায় শিক্ষকের চাকরি নেন। ১৯০৬ সালে আসামের (বর্তমানে মেঘালয়) শিলংয়ে শিক্ষা বিভাগের ডিরেক্টরের অফিসে উচ্চমান সহকারী পদে দায়িত্ব পালন করেন।
স্বাস্থ্যহীনতার কারণে এ চাকরি ছেড়ে দেন। ১৯০৭ সালে ঢাকা মাদরাসায় শিক্ষকতায় যোগ দেন। ১৯১১ সালে ঢাকা টিচার্স ট্রেনিং কলেজে ভূগোলের অধ্যাপক ও ১৯১৪ সালে ঢাকা বিভাগের মুসলিম শিক্ষার সহকারী পরিদর্শক নিযুক্ত হন। ১৯২১ সালের মে মাসে ঢাকা মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড স্থাপিত হলে এর প্রথম সেক্রেটারি পদে নিযুক্তি লাভ করেছিলেন। মৃত্যুকাল পর্যন্ত এ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ঢাকা নগরীর ইস্কাটন এলাকায় তিনি বাস করতেন।
কাজী ইমদাদুল হক একজন খ্যাতনামা ঔপন্যাসিক। আবদুল্লাহ তার বিখ্যাত উপন্যাস। তৎকালীন বাঙালি মুসলিম সমাজের নানা দোষত্রুটি এতে দক্ষতার সাথে অঙ্কিত। এ উপন্যাসের ৩০টি পরিচ্ছেদ তার নিজের রচনা। বাকি ১১টি পরিচ্ছেদ তার মৃত্যুর পর শিক্ষাবিদ আনোয়ারুল কাদির কর্তৃক তারই খসড়া অনুসরণ করে রচিত হয়েছে। মুসলিম সমাজচিত্রের প্রতিচ্ছবি হিসেবে আবদুল্লাহ ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে বাংলাভাষীদের মধ্যে। তিনি ছিলেন কবিতা, প্রবন্ধ ও শিশুসাহিত্যের রচয়িতা এবং তার প্রকাশিত গ্রন্থাবলি : উপন্যাসÑ আবদুল্লাহ; কাব্যÑআঁখিজল ও লতিকা; প্রবন্ধÑ প্রবন্ধমালা; শিশুতোষ গ্রন্থÑনবী কাহিনী। তিনি শিক্ষক নামে মাসিক পত্রিকা সম্পাদনা করেছেন।
তিনি ছিলেন সুপরিচিত বঙ্গীয় মুসলমান সাহিত্য সমিতির অন্যতম স্থপতি এবং সমিতির মুখপত্র বঙ্গীয় মুসলমান সাহিত্য পত্রিকার পরিচালনা কমিটির সভাপতি। বাঙালি মুসলমান সমাজের কল্যাণসাধনই ছিল তার সাহিত্য-সাধনার মূল লক্ষ্য। ১৯২৬ সালে তিনি খান বাহাদুর উপাধি লাভ করেন এবং ওই বছরের ২০ মার্চ মাত্র ৪৩ বছর বয়সে কলকাতায় ইন্তেকাল করেন।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫