আগৈলঝাড়া হাসপাতালে মেডিকেল সহকারীর বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের এক মেডিকেল সরকারীর বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও সরকারের রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৫০ শয্যার উপজেলা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের মেডিকেল সহকারী মোঃ মোখলেচুর রহমানের বিরুদ্ধে অফিস সময়ে রোগীদের জিম্মি করে টাকা আদায়সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে।

২০০১ সালে এই হাসপাতালে যোগদান করার পর থেকে ১৬ বছরেও অন্য কোন স্থানে বদলি হননি। তিনি যোগদানের পর থেকেই হাসপাতালের জরুরী বিভাগকে কসাইখানা নামে পরিচিতি পেয়েছেন।

সরকারী হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবার কথা থাকলেও এই হাসপাতালে চলছে তার ভিন্ন চিত্র। জরুরী বিভাগে আসা অনেক রোগী নাম না প্রকাশের শর্তে জানান, সড়ক দূর্ঘটনা, মারামারি রোগীর কাটাচেরা, হাত-পা ভাঙ্গাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীরা হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আসলে তখন সেকমো মোঃ মোখলেচুর রহমানের ভোল্ট পাল্টে যায়। চিকিৎসা দেয়ার আগেই চলে টাকার কথা। কোনও রোগী তার চাহিদা মতো টাকা দিতে না পারলে তাকে এখানে চিকিৎসা না দিয়ে বরিশাল শেবাচিমে প্রেরন করেন।

এছাড়াও অনেক রোগীর কাছ থেকে ডাক্তারের নাম দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্বে। ঔষধ কোম্পানী ও প্যাথলজী থেকেও মাসিক হারে কমিশন নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি টিকিট সরকার নির্ধারিত ১০টাকা থাকলেও প্রকারভেদে বিভিন্ন রোগীর কাছ থেকে একশত থেকে পাঁচশত টাকা নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। হাত-পা ভাঙ্গা রোগীর কাছ থেকে দুই থেকে পাঁচ হাজার টাকা নেয়া হচ্ছে। বর্তমানে তার বেতন ৫৪ হাজার টাকা। যা জিপি ফান্ডে প্রতিমাসে দশ হাজার টাকা জমা রাখছেন। তার বাসা ভাড়া সরকার নির্ধারিত ১৩ হাজার টাকা। কিন্তু তিনি ২০১৬ সালের জুলাই মাস থেকে চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত মোট নয় মাস ভাড়া না দিয়ে সরকারের ১ লক্ষ ১৭ হাজার টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছেন।

এছাড়াও হাসপাতালের অনেক ষ্টাফ বাসা ভাড়া না দিয়ে বছরের পর বছর থাকছেন। এই হাসপাতালের উর্ধতন কর্মকর্তাদের আর্থিক ভাবে ম্যানেজ করে থাকছেন অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারী। এব্যাপারে হাসপাতালের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আলতাব হোসেন জানান, উধ্বর্তন কর্মকর্তার সাথে কথা বলে প্রয়োজনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.