ঢাকা, বুধবার,২৪ মে ২০১৭

এশিয়া

চীন-পাকিস্তান যৌথ উদ্যোগে তৈরি হবে ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র, যুদ্ধবিমান

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৭ মার্চ ২০১৭,শুক্রবার, ১৪:০৩


প্রিন্ট

পাকিস্তানের সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা আরও নিবিড় করার লক্ষ্যে এগোচ্ছে চীন। পাকিস্তানের নয়া সেনা প্রধান চীনে তার প্রথম সফরে গিয়েছেন। সেই সূত্রে ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও অ্যাডভান্সড সামরিক বিমান যৌথভাবে উৎদনের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছে চীন ও পাকিস্তান। চীনের সরকারি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে এ কথা জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, কয়েকমাস আগেই ভারতের অগ্নি ৫ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ ঘিরে সরব হয়েছিল চীন। ভারতের ব্যালেস্টিক ক্ষেপনাস্ত্র কর্মসূচির তীব্র সমালোচনা করেছিল বেইজিং। ভারত জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব লঙ্ঘন করেছে বলেও অভিযোগ করেছিল বেইজিং।

এবার সেই চীনই পাকিস্তানের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎদনের বিষয়টি বিবেচনা করছে। চীনের সংবাদমাধ্যম গতকাল জানায় যে, ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র, ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র, বিমান-বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র, যুদ্ধজাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ও যুদ্ধ ট্যাঙ্ক উৎদনের বিষয় পাকিস্তানের সেনাপ্রধানের সফরের সময় আলোচ্যসূচির মধ্যে রয়েছে।

পিপলস লিবারেশন আর্মি-র প্রাক্তন এক কর্মকর্তা গ্লোবাল টাইম-কে বলেছেন, যুদ্ধবিমান যৌথভাবে তৈরির বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

গতকাল পাকিস্তানের সেনাপ্রধান কামার বাজওয়া চীনের শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা ফ্যাং ফেংগুইয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন। চীন বর্তমানে চীন-পাকিস্তান আর্থিক করিডোরকে অত্যন্ত অগ্রাধিকারের তালিকায় রেখেছে। এই করিডোরের নিরাপত্তার সম্পূর্ণ আশ্বাস দিয়েছেন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান।

জানা গেছে, করিডোরের সঙ্গে যুক্ত চীনের কর্মী ও প্রকল্প রক্ষার আশ্বাস দিয়েছেন বাজওয়া। করিডোরের নিরাপত্তায় ১৫ হাজার সদস্যের একটি বাহিনী গঠন করেছে পাকিস্তান। দায়িত্বভার গ্রহণের পরই ওই নিরাপত্তা বাহিনীর দফতরে গিয়েছিলেন বাজওয়া।

গতকাল দুই পক্ষই সন্ত্রাস মোকাবিলায় সহযোগিতা গড়ে তোলার বিষয়টি নিয়েও আলোচনা করেছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫