বিশ্বসাহিত্যের টুকিটাকি

মতিন মাহমুদ

লন্ডন বুক ফেয়ারে ব্রেক্সিটের কালো ছায়া

সাহিত্য রাজনীতিকে বাদ দিয়ে হয় না। তারই প্রমাণ পাওয়া গেল এবারের লন্ডন বইমেলায়। গত ১৪ থেকে ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এই মেলা। অংশ গ্রহণকারী দেশের দিক থেকে লন্ডন বুক ফেয়ার বিশ্বের অন্যতম সেরা বইমেলা।
এ মেলায় ১৪২টি দেশের প্রকাশকরা যোগ দিয়েছেন। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়ার ঘটনা বা ব্রেক্সিটের প্রস্তাব অনুমোদনের ঘটনা এই মেলায় কালো ছায়া হিসেবে বিরাজ করে। সবারই আতঙ্ক আগামীতে কী হয়। বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থায় কর্মরত বিদেশী নাগরিকদের কর্মসংস্থান প্রশ্নেই এই আতঙ্ক বেশি। প্রকাশকরা হয়তো এ বছর ব্যবসা ভালোই করেছেন। তবে ব্রেক্সিট প্রশ্নেই দেখা দিয়েছে যত অনিশ্চয়তা। লন্ডন বুক ফেয়ারের পরিচালক জ্যাকস টমাস তার উদ্বোধনী সংবাদ সম্মেলনে পরপর দ্বিতীয় বছর প্রকাশকদের ভালো বেচাবিক্রির সম্ভাবনায় সন্তোষ প্রকাশ করেন। অনূদিত বই বৃদ্ধি পাওয়ায়ও তিনি খুশি। তবে পরে একই স্থানে অনুষ্ঠিত একটি প্যানেল আলোচনায় ব্রেক্সিটের প্রসঙ্গ টেনে প্রকাশকরা আশঙ্কার কথা ব্যক্ত করেন। ইউকে পাবলিশার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান নির্বাহী স্টিফেন লোটিংগা বলেন, দুই বছর পর ব্রিটেন কোন ধরনের দেশে পরিণত হবে সেটাই ভাবনার বিষয়। বর্তমানের মূল্যবোধগুলো লালন করা যাবে কিনা সে ভাবনাও আছে। সবচেয়ে ভাবনার বিষয় হলো অর্থনৈতিক অবস্থা আরো খারাপ হয়ে পড়ে কিনা। অপর বক্তারা বলেন, বিদেশী কর্মীরা এ দেশে কাজ করতে পারবে এ মর্মে সরকারের উচিত হবে এগুলোর নিশ্চয়তা দেয়া।

যুক্তরাষ্ট্রে হিস্ট্রিক্যাল সোসাইটি বুক প্রাইজ

যুক্তরাষ্ট্রের হারভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর জেন কামেনস্কি এ বছর সে দেশের হিস্ট্রিক্যাল সোসাইটি বুক প্রাইজের জন্য মনোনীত হয়েছেন। এটি একটি ননফিকশন পুরস্কার, যা ঐতিহাসিক দিক থেকে মূল্যবান এমন কোনো বইয়ের জন্যই দেয়া হয়ে থাকে। জেন তার লেখা বই ‘এ রেভল্যুশন ইন কালার : দি ওয়ার্ল্ড অব জন সিংলেটন কপল-এর জন্য এ পুরস্কার পাচ্ছেন। এ পুরস্কার দিচ্ছে নিউ ইয়র্ক হিস্ট্রিক্যাল সোসাইটি। এই সংস্থা প্রতি বছর ইতিহাসনির্ভর বইয়ের জন্য এ পুরস্কার দিয়ে থাকে। জেনের এই বইটি প্রকাশ করেছে প্রকাশনা সংস্থা ডব্লিউ ডব্লিউ নর্টন। এ পুরস্কারের অর্থমূল্য ৫০ হাজার ডলার ও একটি মেডেল। আগামী ২১ এপ্রিল ওই হিস্ট্রিক্যাল সোসাইটির বার্ষিক অনুষ্ঠান ‘উইক অ্যান্ড উইথ হিস্ট্রি’ চলাকালে লেখিকা জেন-এর হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.