ঢাকা, মঙ্গলবার,২৮ মার্চ ২০১৭

সিলেট

সুনামগঞ্জে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে নারীসহ আহত অর্ধশতাধিক

দিরাই-শাল্লা (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা

১৫ মার্চ ২০১৭,বুধবার, ১৫:২৪ | আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৭,বুধবার, ১৫:৪৪


প্রিন্ট

সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার উপ্তির পাড়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুপক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে নারীসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। আহতদের সুনামগঞ্জ সদর ও দিরাই উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসলে ৩৫ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টায় গ্রামের আমীর আলী ও জমশেদ আলীর লোকদের মধ্যে ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষটি হয়। খবর পেয়ে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

থানা পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায় , আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপ্তির পাড় গ্রামের আমীর আলী ও জমশেদ আলীর লোকদের মাঝে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ, সংঘর্ষ ও মামলা মোকদ্দমা চলে আসছে। বিগত চয় মাস আগে পার্শ্ববর্তী দুই উপজেলার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উভয় পক্ষকে নিয়ে সালিশের মাধ্যমে বিরোধ মীমাংসার চেষ্টা করেন। গত দুই সপ্তাহ আগে জমশেদ আলীর পক্ষের সাইফুল ইসলামকে রাস্তায় একা পেয়ে আমীর আলীর লোকজন হামলা করে। এর সূত্র ধরে গতকাল দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নারীসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়।

আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ফারুক (৫৫), আমজাদ (৪৫), শের আলম (১৮), তাজুদ (৩৫), নাইম (১৮), জমশেদ (৫৬), লাল মিয়া (৫৫), মনির (১৮), আতাউর (৩০), সাজ্জুল (৩৫), সানাওর (৭০), আলেক (৬৫), শহীদ (৩৪), জিয়াউল (২৩), জামিল (২৫), সুমন (২৪), ঝুমুর (৫২), শাহেনা (৬০), জহিরুন (২৬), সেলেনা (৪০), রাশিদা (৫০), আফিয়া (৩৫), হাসিনা (২৭) সহ উভয় পক্ষের ৩৫ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেলে পাঠান দুই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক। বাকিদের সুনামগঞ্জ সদর ও দিরাই উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

সংঘর্ষের ব্যাপারে এক পক্ষ অপর পক্ষকে দায়ী করছে। দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ আল আমিন জানান, উপ্তির পাড়ে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫