মোহাম্মদ নাসিম (ফাইল ফটো)
মোহাম্মদ নাসিম (ফাইল ফটো)

চোখের মনির মত ১৪ দলীয় ঐক্যকে রক্ষা করতে হবে : মোহাম্মদ নাসিম

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ দলের সমন্বয়ক, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম কাজী আরেফের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেছেন, সন্ত্রাস বিরোধী আন্দোলনে সাহসী ভূমিকা পালন করতে গিয়েই তিনি শহীদ হয়েছিলেন। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতে ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। চোখের মনির মত ১৪ দলীয় ঐক্যকে রক্ষা করে আগামী নির্বাচন ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করতে হবে।

শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে জাসদ কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি আয়োজিত জাতীয় বীর কাজী আরেফ আহমেদের স্মরণ সভায় মোহাম্মদ নাসিম একথা বলেন।

এতে জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, জঙ্গি ও জঙ্গিসঙ্গীর কাঁটা উপড়ে ফেলেই দেশ নির্বাচনের পথে এগিয়ে যাবে। গণতন্ত্র-শান্তি-উন্নয়নের ধারা এগিয়ে যাবে জঙ্গি আর জঙ্গিসঙ্গী এক চুলও ছাড় পাবে না।

তিনি বলেন, বিএনপি জঙ্গিবাদের ডিমে তা দিয়ে বাচ্চা ফোটানোর যন্ত্র। বেগম জিয়া বিএনপিকে দিয়ে জঙ্গিবাদের বাচ্চা ফোটাচ্ছেন। বিএনপিকে জঙ্গি উৎপাদন-পুনরুৎপাদনের কারখানায় পরিণত করেছে।

তিনি বলেন, যথাসময়ে নির্বাচন করতে হবে, গণতন্ত্রকেও নিরাপদ করতে হবে। জঙ্গি, জঙ্গিসঙ্গী ও জঙ্গি উৎপাদনের কারখানাও বন্ধ করতে হবে।

ইনু কাজী আরেফ আহমেদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, পঁচাত্তরের রাজনৈতিক বিপর্যয়ের পর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষ শক্তির দ্বন্দ্বই রাজনীতির প্রধান দ্বন্দ্ব হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল, তা তিনি সঠিকভাবে উপলব্ধি করে গণতান্ত্রিক সংগ্রামের তত্ত্ব বিনির্মাণ করেছিলেন।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে আন্দোলনে কাজী আরেফ আহমেদ ছিলেন অগ্রনী।

তিনি বলেন, রাজনৈতিকভাবে জঙ্গিবাদ-সাম্প্রদায়িকতা মোকাবেলার পাশাপাশি পাঠ্যসূচি থেকে শুরু করে শিক্ষা সাংস্কৃতির সব ক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িকতা মোকাবেলার কাজে আরো মনোযোগ দিতে হবে।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান শওকত, সহ-সভাপতি আফরোজা হক রীনা, ফজলুর রহমান বাবুল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নুরুল আখতার, সহ-সভাপতি সফি উদ্দিন মোল্লা, শহীদুল ইসলাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু, নইমুল আহসান জুয়েল, কাজী আরেফ আহমেদের ছোট ভাই কাজী মাসুদ আহমেদ, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও কাজী আরেফ আহমেদের ভাতিজী কাজী সালমা সুলতানা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি মুহাম্মদ সামছুল ইসলাস সুমন প্রমূখ।

কাজী আরেফের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাসদের পক্ষ থেকে পালিত দিনের অন্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকাল ৮টায় মিরপুর বীর মুক্তিযোদ্ধা কবরস্থানে শহীদ কাজী আরেফের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন ও কবরস্থান কমপ্লেক্সে ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের উদ্যোগে পথসভা।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.