ঢাকা, বুধবার,২৬ এপ্রিল ২০১৭

বিবিধ

মিমির আমন্ত্রণে সেলিম

অভি মঈনুদ্দীন

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭,সোমবার, ১৬:৩৮


প্রিন্ট

গুণী অভিনেত্রী, নাট্যনির্মাতা, প্রশিক্ষক আফসানা মিমির সার্বিক তত্ত্বাবধানে ২০১৫ সালের নভেম্বরে রাজধানীর উত্তরায় শুভযাত্রা হয় ‘বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন একাডেমি’র। বাংলাদেশের নির্মাণকাজ এবং অভিনয়শিল্পকে সারা বিশ্বে আরো সমাদৃত করার লক্ষ্যে কাজ করছে এই অ্যাকাডেমি। সিনেমা, টেলিভিশনের সৃজনশীল কাজকে যারা ভালোবাসেন ও পেশা হিসেবে নিতে চান তাদের শিক্ষণের মাধ্যমে মননশীল ও দক্ষ করে তোলা এবং দিকনির্দেশনা দিয়ে থাকে।

এরই মধ্যে এই অ্যাকাডেমির অ্যাক্টিং ডিপার্টমেন্টের তিন মাসব্যাপী কোর্সের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের কোর্স ফাইনাল পারফরম্যান্স অনুষ্ঠিত হয়েছে। এখন চলছে অনুশীলন পর্ব। অভিনয়কে পেশা হিসেবে নিতে তার সম্ভাবনা ও প্রতিকূলতা বিষয়ে অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য দিতে এর আগে এই অ্যাকাডেমিতে অনেকেই উপস্থিত হয়েছিলেন।

এবারের পর্বে অভিনয় সম্পর্কে আরো বিশদ ব্যাখা তুলে ধরতে এবং শিক্ষার্থীদের প্রশ্নের জবাব দিতে আফসানা মিমির নিমন্ত্রণে গত ৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে উপস্থিত হয়েছিলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিম। বিকেলে ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত টানা প্রায় তিন ঘণ্টা অভিনয় সম্পর্কে বিশদ তথ্য তুলে ধরেন তিনি।

অভিনয় সম্পর্কে গিয়াস উদ্দিন সেলিম বলেন, ‘অভিনয় হচ্ছে শিল্পী যা নন তা করে দেখানো। খুব সহজ ভাষায় বলতে গেলে বলা যায় ভান করা। যার পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা ও আত্মবিশ্বাস যত ভালো, তার অভিনয় ততই ভালো হয়। একজন অভিনয়শিল্পীর সব সময়ই বেশি বেশি গল্প-উপন্যাস পড়তে হয়। আমি মনে করি চলচ্চিত্রে বা নাটকে অভিনয় করার ক্ষেত্রে একজন অভিনয়শিল্পীর অবশ্যই সময়মতো লোকেশনে আসা উচিত এবং তার সহশিল্পীর সাথে যেন সুসম্পর্ক থাকে। পাশাপাশি স্ক্রিপ্ট মুখস্থ থাকাও জরুরি।’

অভিনয় সম্পর্কে বিভিন্ন বিষয়ে ব্যাখ্যা দেয়ার পর উপস্থিত শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন গিয়াস উদ্দিন সেলিম। কেমন লাগলো অ্যাকাডেমিতে এসে শিক্ষার্থীদের সাথে সময় কাটিয়ে? উত্তরে সেলিম বলেন, ‘যেকোনো জায়গায় অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে যাই তখন খুব ভালো লাগে। কারণ শিক্ষার্থীদের নতুন নতুন ভাবনাগুলো আমার সামনে উন্মোচিত হয়। অভিনয় নিয়ে তাদের ধারণাগুলো আমার জানার সুযোগ হয়।’

আফসানা মিমি জানান, এর আগে শিক্ষার্থীদের অনুপ্রেরণা দিতে উপস্থিত হয়েছিলেন বরেণ্য অভিনেতা ও নির্মাতা আফজাল হোসেন, শহীদুজ্জামান সেলিম, অমিতাভ রেজা প্রমুখ।

ছবি : গোলাম সাব্বির

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫