ঢাকা, মঙ্গলবার,১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭

গৃহস্থালি

চুল সাজবে অলঙ্কারে

নিপা আহমেদ

৩০ জানুয়ারি ২০১৭,সোমবার, ১৫:০৯


প্রিন্ট

ফুল ও পাতার বিভিন্ন শেপ মূলত হেয়ার এক্সেসরিজের মূল ডিজাইন। কখনো সিঙ্গেল ফুল বা পাতা বিভিন্ন ডিজাইনে সাজিয়ে তৈরি করা হয় ব্যান্ড। কোনো কোনোটায় মালার মতো করে সাজানো থাকে ফুল, পাতা, ডাল। কোনো কোনোটার নকশায় থাকে প্রজাপতি, পাখি বা অন্য কোনো প্রাণীর প্রতিবিম্ব। কখনো শুধু বিভিন্ন সাইজের পুঁতি দিয়ে তৈরি করা হয় হেয়ার পিন বা ব্যান্ড।
সাইজের দিক থেকেও রয়েছে বিভিন্ন সাইজের। ছোট ফুল বা পাথর বসানো হেয়ার পিনগুলো অনেক আগে থেকেই স্টাইলিংয়ে ছিল। এখন চিরুনি ডিজাইনের ওপর জমকালো পাথরের কারুকাজ করা ক্লিপ বেশ জনপ্রিয়।
ঝোলানো কিছু ডিজাইনের হেয়ার অর্নামেন্ট রয়েছে, যেগুলো টায়রা হিসেবে পরিচিত, এগুলো মূলত পাথরখচিত হয়ে থাকে।
পুরনো প্রবাদ বাক্য ‘যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে’। বলা যায় চুল বাঁধাকে একটা দক্ষতা হিসেবে বোঝানো হয়েছে। চুল বাঁধার বিষয়টি দিনে দিনে পরিণত হয়েছে সাজের অন্যতম অংশ হিসেবে। আধুনিক সাজে অবশ্য শুধু বেঁধে নিলেই চুলের সাজ শেষ হয়ে যায় না। সেই সাথে ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন এক্সেসরিজ। যেমনÑ হেয়ার পিন, ক্লিপ, ব্যান্ড, টায়রা আরো কত কী! আর এগুলোর ডিজাইন রঙ, বৈচিত্র্য চুলের সাজে মুহূর্তে নিয়ে আসে আকর্ষণ। রঙ-বেরঙের পাথর মেটাল, পুঁতি, মুক্তা, ক্রিস্টাল আরো কত কি-ই না ব্যবহার হচ্ছে চুলের সাজে। শুধু এ অঞ্চলে নয় পশ্চিমা বিশ্বেও এসব এক্সেসরিজ বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।
আজকাল চুলে হিজাবের ওপর বিভিন্ন ধরনের অর্নামেন্ট পড়া বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। সিঁথিপাট, টিকলির সাথে সাথে এসব কস্টিউম জুয়েলারি তরুণীরা আগ্রহী নিয়েই ব্যবহার করছে।
মূলত গোল্ডেন ও সিলভার কালারের জুয়েলারিগুলোই ক্রেতাদের কাছে বেশি পছন্দের। তবে পোশাকের বা হিজাবের রঙের সাথে সামঞ্জস্য রেখে অনেকে এসব জুয়েলারি পছন্দ করে থাকে।
দরদাম : ম্যাটেরিয়ালের ওপর নির্ভর করে এসব অর্নামেন্টের দাম। সাইজও একটা বড় বিষয়। সাইজ ভেদে এগুলোর দাম শুরু হয় ১০০ টাকা থেকে। এক হাজার ৫০০ থেকে ২০০০ হতে পারে ডিজাইন অনুসারে।
কোথায় পাবেন : ঢাকায় বড় মার্কেট ও শপিংমলগুলোতে রয়েছে চুল সাজানোর এসব জুয়েলারি। এ ছাড়া আলমাস, খাজানার মতো শপিং সেন্টারেও পাবেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫