ঢাকা, বুধবার,২২ নভেম্বর ২০১৭

বিবিধ

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা

নাজমুল হোসেন

২৩ জানুয়ারি ২০১৭,সোমবার, ১৮:১৮


প্রিন্ট

প্রতি বছর ঢাকাবাসীর জন্য উৎসব ও আনন্দের আমেজ নিয়ে শুরু হয় ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা। মাসব্যাপী এই মেলা শহরের সীমিত বিনোদন সুবিধার ক্ষেত্রে যোগ করে বাড়তি মাত্রা। এবারো চলছে মেলা। প্রতিদিন থাকছে দর্শনার্থীদের ভিড়।
মেলা ঘুরে দেখা গেছে, গৃহস্থালি পণ্য, গয়না ও পোশাকের প্যাভিলিয়নে ভিড় বেশি। এসব প্যাভিলিয়ন ও স্টলগুলোতে নারীদের পাশাপাশি শিশু-কিশোরদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো। নানা মডেলের তৈরী গলার মালা, ঝুমকা, কানের দুল, ডায়মন্ড কাট, লকেট, চেইন, চুড়ি, ব্রেসলেট ও দৃষ্টিনন্দন ফিঙ্গার রিংসহ রঙ-বেরঙের অলঙ্কার ও জিনিসপত্রের দোকানে ভিড় করছেন মেলায় আগতরা।
বিভিন্ন পণ্যের বিক্রি বাড়ানোর জন্য বহু ধরনের অফার দিচ্ছেন বিক্রেতারা। মেলায় অফারের দিক থেকে সব থেকে বেশি এগিয়ে আছে ক্রোকারেজের স্টল। একটি পণ্যের সাথে তিনটি, পাঁচটি, কোথাও কোথাও ১০টি পর্যন্ত ফ্রি থাকছে। বিক্রেতারা বলছেন, পণ্যের প্রচারের জন্যই এসব অফার দিচ্ছেন তারা। পণ্য বিক্রির কৌশল হিসেবে এ ধরনের অফারকে স্বাগত জানালেও পণ্যের গুণগত মান নিয়ে সন্দেহ রয়েছে ক্রেতাদের।

আসবাবে নতুনত্ব
ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় (ডিআইটিএফ) আসবাব খাতের প্রথম সারির কয়েকটি ব্র্যান্ড প্রতিবারের মতো এবারো পণ্য প্রদর্শনের জন্য দৃষ্টিনন্দন প্যাভিলিয়ন নির্মাণ করেছে। মেলা উপলক্ষে প্রতিটি ব্র্যান্ডই নতুন নকশার আসবাব এনেছে। দিচ্ছে বিভিন্ন অঙ্কের মূল্যছাড়।
মেলার মূল ফটকের সামনেই হাতিলের তিনতলা প্যাভিলিয়ন। হাতিল সব পণ্যেই ৫ থেকে ২০ শতাংশ মূল্যছাড় দিয়েছে। মেলা ছাড়াও সারা দেশের ৬৮টি বিক্রয়কেন্দ্র থেকেই এ সুবিধা পাবেন ক্রেতারা।
নাভানা ফার্নিচার নতুন দু’টি বেডরুম সেট নিয়ে এসেছে। প্রতিষ্ঠানটির নতুন পণ্যের তালিকায় আরো আছে সোফা সেট, ডাইনিং টেবিল, আলমারিসহ বিভিন্ন পণ্য। সব পণ্যেই প্রতিষ্ঠানটি ১৭ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড় দিচ্ছে। নাভানার যেকোনো বিক্রয়কেন্দ্রে মূল্যছাড়ের সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।
লেমিনেটেড প্লাইউড ও রড আয়রনের পাশাপাশি এবার প্রথমবারের মতো ওক কাঠের তৈরি আসবাব নিয়ে এসেছে রিগাল ফার্নিচার। রিগালে মেলা উপলক্ষে সব পণ্যে ১০ শতাংশ মূল্যছাড় আছে। এ ছাড়া ক্রেতাদের বাসায় পৌঁছে দেয়া ও আসবাব সংযোজন বিনামূল্যে করে দিচ্ছে। মূল্যছাড়সহ অন্য সুবিধাগুলো মেলার বাইরে রিগালের বিক্রয়কেন্দ্র থেকেও পাবেন ক্রেতারা।
নতুন নকশার বেশ কিছু পণ্য এনেছে আকতার ফার্নিচার। সব ধরনের আসবাবে ১২ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড়ের পাশাপাশি ‘এক লাখ টাকা ক্যাশব্যাক’ সুবিধা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এ ছাড়া ব্রাদার্স, পারটেক্স, নাদিয়াসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিয়েছে।

ল্যাপটপ কিনলেই ফ্রি স্মার্টফোন
মেলায় শিক্ষার্থীদের জন্য ১৪ ইঞ্চি হাই ডেফিনেশন ডিসপ্লের দু’টি নতুন মডেলের ল্যাপটপ বাজারজাত করছে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন। বাণিজ্যমেলা উপলক্ষে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের সব মডেলের ল্যাপটপের সাথে উপহার হিসেবে দেয়া হচ্ছে একটি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ও ব্যাকপ্যাক অথবা সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ মূল্যছাড়।
মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের রুচি, চাহিদা ও ক্রয় সক্ষমতার ভিন্নতা অনুযায়ী ৬০টিরও বেশি ইলেকট্রনিকস ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্যের পাঁচ শতাধিক মডেল প্রদর্শন ও বিক্রি করছে ওয়ালটন। রয়েছে আগামী প্রজন্মের কোয়ান্টম ডট প্লাস প্রযুক্তির স্পেকট্রাকিউ টিভিসহ বেশ কিছু পণ্যের আপকামিং মডেল। স্পেশাল প্রোডাক্ট হিসেবে মেলায় প্রদর্শিত হচ্ছে হাই-রেজুলেশনের ৯৫ ও ৭৫ ইঞ্চির ফোর-কে টেলিভিশন।

বাইসাইকেলে মূল্যছাড়
মেলায় ক্রেতাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে নতুন সব ডিজাইনের বাইসাইকেল দিয়ে দুরন্ত বাইসাইকেলের প্যাভিলিয়নটি সাজানো হয়েছে। মেলা উপলক্ষে ১০টি নতুন ডিজাইনের বাইসাইকেলসহ সব মিলিয়ে ৩২টি ডিজাইনের সাইকেল নিয়ে এসেছে দুরন্ত।

পছন্দের জুতা
বাণিজ্যমেলায় মেয়েরা কিনছেন পাকিস্তান ও ভারতের তৈরী নাগরা জুতা। এ দিকে পুরুষেরা ভিড় করছেন বিদেশী প্যাভিলিয়নের জুতার দোকানগুলোতে। সে ক্ষেত্রে তাদের পছন্দের শীর্ষে থাকছে পেনি লোফার জুতা। এ বছর বাহারি রঙ ও ডিজাইনের তৈরী নাগরা বাজারে এসেছে এবং গত বছরের তুলনায় দামও কম।

১০ টাকায় মিলছে স্পি ড্রিংকস
মেলা ঘুরতে ঘুরতে ক্লান্ত হয়ে পড়লে খেতে পারেন স্পি পাউডার ড্রিংকস। মাত্র ১০ টাকায় ইস্পাহানির স্টলেই মিলছে সুস্বাদু এই ড্রিংকস। মেলা উপলক্ষে ৫০০ গ্রাম স্পি পাউডার ড্রিংকস পাওয়া যাচ্ছে ১৫৫ টাকায়। ইস্পাহানির অ্যাসিস্ট্যান্ট সেলস অফিসার আমিনুজ্জামান জানিয়েছেন, মেলা উপলক্ষে এবারই প্রথম বড় পরিসরে ইস্পাহানি খাদ্যসামগ্রীর পসরা সাজিয়েছে। মেলায় বিশেষ ছাড়ে ইস্পাহানির সাতটি ফুড প্যাকেজ বিক্রি করা হচ্ছে।

খাবারে গলাকাটা দাম
মেলার ফুডস্টলগুলো ঘুরলেই বুঝতে পারবেন খাবারের গায়ে আগুন লেগেছে। আশুলিয়া থেকে পরিবারসহ বাণিজ্যমেলায় এসেছেন আবুল কালাম। তিনি অভিযোগ করে বলেন, হোটেলগুলোতে খাবারের মূল্য দ্বিগুণেরও বেশি। বাইরে যে খাবার ৬০ টাকা, এখানে সেটা ১২০ টাকা। মেলা কর্তৃপক্ষ খাবারের যে মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে তা দৃশ্যমান। তবে এই মূল্য অমান্য করে দোকানগুলো দাম বেশি নিচ্ছে, তা দেখেও কেউ দেখছে না। কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে প্রতিটি খাবারে ১০ থেকে ৫০ টাকা বেশি রাখছেন এসব ব্যবসায়ী।

এবার বাণিজ্যমেলায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২২টি দেশ অংশ নিয়েছে। দেশগুলো হলোÑ ভারত, পাকিস্তান, চীন, মালয়েশিয়া, জাপান, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, জার্মানি, ইরান, থাইল্যান্ড, নেপাল, হংকং, আরব আমিরাত, মরিশাস, ঘানা, মরক্কো ও ভুটান। মেলার প্রধান গেট দিয়ে ঢোকার পর বাঁ-পাশে ইরানি পণ্যের প্যাভিলিয়ন। তাতে রত্নপাথর, বোরকা, কসমেটিকস, প্রেসারকুকার, মসলা ইত্যাদি পণ্যে ভরপুর।

বাণিজ্যমেলা আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চলবে। মেলায় একবার প্রবেশে টিকিটের মূল্য প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৩০ ও শিশুদের জন্য ২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এবার অনলাইনে টিকিট কাটা যাচ্ছে।

ছবি: নূর হোসেন পিপুল

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫