ঢাকা, শনিবার,২২ জুলাই ২০১৭

নগর মহানগর

খুলনায় চিকিৎসা অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ কিনিক ভাঙচুর

খুলনা ব্যুরো

১২ জানুয়ারি ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

খুলনায় চিকিৎসা অবহেলায় প্রসূতি সেলিনা বেগমের (৩০) মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রোগীর স্বজনেরা ক্ষুব্ধ হয়ে কিনিকে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে। গতকাল নগরীর খানজাহান আলী রোডে লাজ কিনিক অ্যান্ড হেলথ কেয়ার সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।
কিনিক সূত্রে জানা গেছে, নগরীর মৌলভীপাড়া এলাকার সন্তান সম্ভাবা গৃহবধূ সেলিনা বেগমকে গত ৮ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ওই কিনিকে ভর্তি করা হয়। রাত সাড়ে ৮টার দিকে সিজার অপারেশনের মাধ্যমে তার একটি পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। কিনিকের মালিক ডা: সৈয়দ জাহানারা মাহমুদ প্রসূতির অপারেশন করেন। ওই দিন রাত ১২টার দিকে প্রসূতির স্বাস্থ্যের অবনতি হলেও পরে অবস্থার উন্নতি হয়। গত দুই দিন ভালো থাকার পর গতকাল দুপুর ১২টার দিকে হঠাৎ করে খিঁচুনি ওঠার কিছুক্ষণ পরই তিনি মারা যান। এ দিকে চিকিৎসা অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ এনে নিহতের স্বজনেরা ক্ষুব্ধ হয়ে কিনিকে হামলা চালায়। এ সময় তারা অপারেশন থিয়েটার, ভিজিটর্স রুম এবং চেয়ার-টেবিলসহ বিভিন্ন কক্ষ ব্যাপক ভাঙচুর করেন। খবর পেয়ে খুলনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।
কিনিকের মালিক ডা: সৈয়দ জাহানারা মাহমুদ বলেন, রোগীর চিকিৎসার জন্য তার স্বজনদের রক্ত আনতে বলা হয়। কিন্তু তারা সময়মতো রক্ত আনতে পারেনি। ফলে রোগী পোস্ট পার্টাম হেমোরেজ (পিপিএইচ) রোগে আক্রান্ত হয়। যে কারণে খিঁচুনি ওঠার কিছুক্ষণের মধ্যে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। এখানে চিকিৎসা অবহেলা বা অপচিকিৎসার কোনো ঘটনা ঘটেনি। খুলনা থানার এসআই মো: মিকাইল হোসেন বলেন, চিকিৎসা অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। রোগীর স্বজনেরা কিনিক ভাঙচুরও করেছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫