ঢাকা, বৃহস্পতিবার,১৯ অক্টোবর ২০১৭

প্রথম পাতা

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য আর অনুমতির অপেক্ষা করা হবে না : রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ জানুয়ারি ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সরকারের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ভবিষ্যতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য আর পুলিশের অনুমতি চাওয়া হবে না। তিনি গতকাল এক মানববন্ধন অনুষ্ঠানে বলেন, এরশাদের মতো রাজাকার যদি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি পায়, সেক্টর কমান্ডারের দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল কেন অনুমতি পাবে না? এবার কোনো স্বৈরাচারের কাছে অনুমতি নয়, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ হবে, কোনো পুলিশের অনুমতির জন্য আর অপো করা হবে না।
গতকাল জাতীয় প্রেস কাবের সামনে এই মানববন্ধন হয়। বিএনপির বরিশাল মহানগর কার্যালয়ে গণতন্ত্র হত্যা দিবস উপলে কর্মসূচি পালনকালে মহিলা দলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে এই মানববন্ধনের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল। মহিলা দলের সিনিয়র সহসভাপতি নুর জাহান ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খানের পরিচালনায় মানববন্ধন কর্মসূচিতে মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, পেয়ারা মোস্তফাসহ কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য রাখেন।
মহিলা দলের নেত্রীরা কালো কাপড় মুখে বেঁধে আওয়ামী লীগের কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানান।
বরিশালের ঘটনার পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ঘটনার পর উনি বললেন আমরা তার বিচার করব। অথচ আজো হামলাকারীরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। ওরা বরিশাল শহরের ফুটপাথে ফুটপাথে বুক চিতিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।
তিনি আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের উদ্দেশে বলেন, আপনি যেটা করতে চান, আপনার নেত্রী সেটা করতে চান না। কারণ বিএনপির নেতারা যদি রাজপথে লুটিয়ে পড়ে, তাহলে আপনার নেত্রী আনন্দিত হন, উল্লসিত হন। তিনি বিএনপির রক্ত চান, গণতন্ত্র চান না। তিনি বিরোধী দলকে ঠেকিয়ে দিতে চান, নাগরিক স্বাধীনতা চান না।
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ প্রসঙ্গে রুহুল কবির রিজভী বলেন, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদÑ তিনি ৫০টি হাতি নিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করেছেন। আপনারা দেখেছেন, ঢাকা শহরের রাস্তাঘাট সব কিছু বন্ধ করে আওয়ামী লীগ সমাবেশ করেছে। কেউ রাস্তার ভেতরে আটকে পড়–ক, যানজটে নিপীড়িত হোকÑ এটাতে আওয়ামী লীগের যায় আসে না। কারণ নারায়ণগঞ্জ থেকে, গাজীপুর থেকে টোকাই নিয়ে এসে আপনারা ভর্তি করেছেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। সেখানে আপনারা বড় বড় কথা বলেছেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫