ঢাকা, শুক্রবার,২০ অক্টোবর ২০১৭

দেশ মহাদেশ

সিল্করুটের পুনরুজ্জীবন

চীন-ব্রিটেন রেল যোগাযোগ

আদিবা সাইয়ারা

১২ জানুয়ারি ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

চীনের সিল্করুট পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বিশে^র বিভিন্ন দেশের সাথে সংযোগের নানামুখী প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। সমুদ্রবন্দরের সাথে সংযোগের পাশাপাশি স্থলপথেও নতুন নতুন সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। চলছে রেলসংযোগ। আফ্রিকা, এশিয়া ও ইউরোপের সাথে সমানতালে চীনা প্রকল্পের কাজগুলো এগিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি লন্ডনের সাথে সরাসরি চীনের রেল যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছে। ব্রিটেনের সাথে চীনের অর্থনৈতিক বিশেষ করে বাণিজ্য সম্পর্ক অত্যন্ত সুদৃঢ়। দুই দেশের মধ্যে রেল যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে এই সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে বলে আশাবাদী দুই দেশ। এই রেল যোগাযোগের মাধ্যমে শুধু ব্রিটেন নয়, গোটা ইউরোপের সাথে বেইজিংয়ের সম্পর্ক আরো বাড়বে।
চীনের রেলওয়ে করপোরেশন দীর্ঘ সাড়ে ১২ হাজার কিলোমিটার রেললাইন স্থাপনের পাশাপাশি অন্যান্য অবকাঠামোগত কাজ সম্প্রতি শেষ করেছে। চীনের ইউ শহর থেকে লন্ডনের মধ্যে মালবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। নতুন বছরের শুরুর দিনে ২০০ কনটেইনার নিয়ে সাড়ে ১২ হাজার কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে সর্বশেষ গন্তব্য লন্ডন পৌঁছাতে এই পণ্যবাহী ট্রেনের সময় লাগবে ১৮ দিন।
চীন থেকে যাত্রা শুরু করে এই ট্রেন কাজাখস্তান, রাশিয়া, বেলারুশ, পোল্যান্ড, জার্মানি, ফ্রান্স ও বেলজিয়াম হয়ে লন্ডন পৌঁছবে। চীনের ঝেজিয়াং প্রদেশের পূর্ব প্রান্তে ইউ শহর থেকে যাত্রা শুরু করে ট্রেনটি। চীনের এই শহরটি মূলত বিশ^ব্যাপী পণ্য বাজারজাত করার জন্য পরিচিত। ব্রিটেনের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ব্রিটেনকে পশ্চিমের সর্ববৃহৎ বিনিয়োগত্রে হিসেবে তুলে ধরতে চেয়েছিলেন। দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এই ট্রেন চালু করে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সেই ইচ্ছেকে কার্যত সবুজ সঙ্কেত দিলেন। এরই সঙ্গে চীন-ব্রিটেনের মধ্যে খুলে গেল বিশাল অর্থনৈতিক লেনদেনের দরজাও।
এই অবকাঠামো নির্মাণের মাধ্যমে চীনের সাথে সড়ক যোগাযোগ স্থাপনের কাজ দ্রুত এগিয়ে যাবে বলে আশা করছেন চীনের যোগাযোগ বিশেষজ্ঞরা। এই রেল যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে মূলত চীনের বেল্ট ওয়ান রোড পরিকল্পনা আরো এক ধাপ অগ্রগতি হলো।
চীনের সাথে এই রেলে পণ্য পরিবহনের দায়িত্ব পেয়েছে চায়না ইউ টাইমেক্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন। এই কোম্পানি ইতোমধ্যে স্পেন ও জার্মানির সাথেও পণ্য পরিবহন শুরু করেছে। চীন আশা করছে ব্রিটেনের সাথে চীনের এই পণ্য পরিবহনের মাধ্যমে পশ্চিম ইউরোপের সাথে বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরো জোরদার হবে।
অর্থনৈতিক পরাশক্তি হিসেবে বিশ^ব্যাপী চীনা পণ্যের বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্য নিয়ে পুরনো সিল্করুটকে পুনরুজ্জীবনের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে চীন। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং নিজেই এর রূপকার। ইতোমধ্যে এশিয়া ও আফ্রিকায় একাধিক গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ করেছে দেশটি। গত বছরের শেষ দিকে চালু হয়েছে পাকিস্তানের গোয়াধর বন্দর থেকে চীনের জিনজিয়াং পর্যন্ত সড়ক যোগাযোগ। এই বন্দর ব্যবহারের মধ্য দিয়ে আরব সাগরে সরাসরি প্রবেশের সুযোগ পেয়েছে চীন। অপর দিকে, মধ্য এশিয়াকে কেন্দ্র করে রেল ও সড়ক নির্মাণের যে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে, চীন-ব্রিটেন রেল যোগাযোগ সে পথকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫