যুক্তরাষ্ট্রের মোকাবিলায় আরো বিমানবাহী রণতরী নামাচ্ছে চীন

নয়া দিগন্ত অনলাইন

মার্কিন হুঁশিয়ারির মুখে নিজেদের শক্তি আরও বাড়াচ্ছে চীন। আর সেই লক্ষ্যে আগামী দিনে চীনা নৌবাহিনীতে যোগ হচ্ছে আনো তিনটি বিমানবাহী রণতরী। দেশের মাটিতে দ্রুত গতিতে দ্বিতীয় বিমানবাহী রণতরী তৈরির কাজ এগোচ্ছে বলে দাবি করেছে স্থানীয় বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম। আর তা হাতে চলে এলেই চীনা নৌবাহিনীয়ে এয়ারক্রাফটের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে তিন। সামরিক বিশেষজ্ঞ লিয়াং ফ্যাং জানিয়েছেন, তিন চীনা এয়ারক্রাফট হাতে আসলে দেশের ভৌগলিক সার্বভৌমত্ব এবং সমুদ্রপথের ওপর চীন আরো জোরালো অধিকার পাবে।

গত সপ্তাহের গোড়ার দিকে চীনা বিমানবাহী রণতরী লিয়াওনিং এবং বাহিনীর সুবিশাল নৌবহর দক্ষিণ চীন সাগরে মহড়া চালিয়েছে। সেই সময়ে প্রকাশিত আরেক খবরে বলা হয়েছে, মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস কার্ল ভিনসনকে ক্যালিফোর্নিয়ার সান দিয়াগো থেকে পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরে মোতায়েন করা হবে।

সামরিক পর্যবেক্ষক লিয়াং ফ্যাং বলেছেন, আধিপত্য প্রতিষ্ঠা নয় বরং জাতীয় স্বার্থ রক্ষার লক্ষ্য নিয়েই বিমানবাহী রণতরী প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটিয়ে চলেছে চীন। বিমানবাহী রণতরীর আকার, এর সঙ্গে জড়িত ব্যাটেল গ্রুপ এবং এতে বহনকারী যুদ্ধবিমানের সংখ্যার দিক থেকে আমেরিকার সঙ্গে চীনের তুলনা চলে না বলে স্বীকার করেন লিয়াং ফ্যাং। তবে এই ক্ষেত্রে প্রচণ্ড উদ্যম থাকার কারণে চীনের ভবিষ্যৎ অনেক বেশি উজ্জ্বল বলে মন্তব্য করেন তিনি। গত এক দশকে চীনের যুদ্ধ-ক্ষমতা অনেক বেড়েছে। শুধু তাই নয়, এই ক্ষমতা ক্রমশ আরো বাড়ানো হবে বলেই জানানো হয়েছে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.