ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

অপরাধ

ফটোসাংবাদিককে গাড়িচাপা : অভিনেতা কল্যাণকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

আদালত প্রতিবেদক

১১ জানুয়ারি ২০১৭,বুধবার, ১৬:৫৬


প্রিন্ট

প্রথম আলোর ফটোসাংবাদিক জিয়া ইসলামকে গাড়িচাপা দেওয়ার মামলায় গ্রেফতারকৃত অভিনেতা কল্যাণ কোরাইয়াকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। নাকচ করা হয়েছে তার জামিন আবেদন।

আজ বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তাকে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করে তিন দিনের রিমান্ড দেওয়ার জন্য আবেদন করেন। অন্যদিকে রিমান্ডের আবেদন নাকচ করে জামিন দেওয়ার জন্য তার আইনজীবী আসামির পক্ষে আবেদন করেন। ঢাকার মহানগর জজ মাজহারুল হক শুনানি শেষে জামিন ও রিমান্ড আবেদন নাকচ করে। তবে ৩ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্তকারী কর্মকর্তা তাকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার নির্দেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আসামিকে রিমান্ড দেওয়ার পক্ষে আদালতে বলেন, দুর্ঘটনার কথা আসামি হাসপাতালে গিয়ে নিজেই স্বীকার করেছে। বিষয়টি ইচ্ছাকৃত কিনা তা তদন্তের দাবিদার। রিমান্ডে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার মূল রহস্য জানা যাবে।

উল্লেখ্য, সোমবার রাত সাড়ে ১১টার সময় বসুন্ধরা শপিংমলের সামনের সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেলে যাওয়ার সময় একটি বেপরোয়া গতির গাড়ি প্রথম আলোর প্রধান ফটোসাংবাদিক জিয়ার মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এ সময় সেখানে থাকা আরও কয়েকজন সাংবাদিক গাড়িটি থামানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু ধাক্কা দেয়ার পর গাড়িচালক সেখানে না দাঁড়িয়ে গাড়ির সামনে-পেছনের লাইট বন্ধ করে দ্রুতগতিতে পালিয়ে যান। যে কারণে গাড়ির নম্বরপ্লেট তাৎক্ষণিকভাবে কেউ দেখতে পারেননি।

দুজন সাংবাদিক আহত জিয়া ইসলামকে একটি অটোরিকশায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

ওইদিন রাত দেড়টার দিকে কল্যাণ কোরাইয়া হাসপাতালে জিয়া ইসলামকে দেখতে যান। সেখানে তিনি উপস্থিত কয়েকজন সাংবাদিককে বলেন, তার গাড়ির মাধ্যমে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় প্রথম আলোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক মেজর (অব.) সাজ্জাদুল কবীর গতকাল মঙ্গলবার রাতে কলাবাগান থানায় বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। পরে পুলিশ কল্যাণ কোরাইয়াকে কলাবাগান থানায় ডেকে নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর এ মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫