ঢাকা, শুক্রবার,২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

টেলিভিশন

ইব্রাহীম পাশার মৃত্যু নিয়ে তোলপাড়

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১০ জানুয়ারি ২০১৭,মঙ্গলবার, ২৩:২৯ | আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০১৭,মঙ্গলবার, ২৩:৫১


প্রিন্ট

বাকের ভাইকে বাংলাদেশী টিভি দর্শকরা এখনো ভুলতে পারেনি। বাস্তবে কেউ নয়, একটি টিভি নাটকের চরিত্র হয়েও তার মৃত্যুর প্রতিবাদে তখন ঝড় উঠেছিল সারা দেশে। হুমায়ুন আহমেদের সৃষ্ট চরিত্র বাকের ভাইয়ের দীর্ঘদিন পর আবার দর্শক হৃদয়ে ঝড় তুলেছে ইব্রাহীম পাশা।


দীপ্ত টিভিতে প্রচারিত সুলতান সুলেমান সিরিয়ালের একটি পার্শ্বচরিত্র ইব্রাহীম পাশা। চরিত্রটি এতই জনপ্রিয় হয়েছে এদেশের দর্শকদের কাছে যে, কাহিনীতে তার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ফেসবুক, টুইটারে দর্শকরা বিভিন্নভাবে তাদের প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন। সিরিয়ালের আজ মঙ্গলবারের পর্বে মৃত্যু হয়েছে ইব্রাহীম পাশার। ষড়যন্ত্রের দায়ে তার মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন সুলতান সুলেমান। ঘুমের মধ্যেই কার্যকর করা হয়েছে এই মৃত্যুদণ্ডাদেশ।


তুরস্কের ঐতিহাসিক ওসমানীয় খিলাফাতের(অটোমান সম্রাজ্য) সবচেয়ে প্রভাবশালী সম্রাট ছিলেন সুলতান সুলেমান। তার বীরত্ব আর রাজ্য শাসনের কাহিনীর সাথে রাজপ্রাসাদের প্রেম, ষড়যন্ত্রের কাহিনী নিয়ে তৈরি করা হয়েছে এই সিরিয়াল। দীপ্ত টিভিতে প্রচারিত সিরিয়ালটি তার কাহিনী বিন্যাস আর টান টান উত্তেজনার চিত্রনাট্যের গুণে সহজেই মন জয় করে নিয়েছে দর্শকদের।


দীপ্ত টিভি কর্তৃপক্ষ এক দিন আগেই জানিয়েছিল আজকের পর্বে সুলতানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে পাশার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হবে। তবে পাশা ভক্তরা মনে করছেন এই অভিযোগ একটি প্রাসাদ ষড়যন্ত্র, পাশা আদতে সবকিছুই সুলতানের মঙ্গলের জন্য করতেন। এই ঘোষণার পরই দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সুলতান সুলেমান ভক্তরা তাদের প্রতিক্রিয়া জানাতে শুরু করেন।

রম্য লেখক মুহাম্মদ আসাদুল্লাহ বেশ কয়েকটি ফেসবুক স্ট্যাটাসে এর প্রতিবাদ জানান। নিজেকে পাশাভক্ত পরিচয় দিয়ে তিনি লিখেন, ’তোমার হাসতে হাসতে কঠিন কথা বলা, দায়িত্বের প্রতি অবিচলতা, আনুগত্য, বাজপাখির মতো দৃষ্টি আর শীতল চোখের প্রেমে পড়েছি।.... .......... তোমার প্রতি ভালোবাসা অনুভব করার পর থেকেই তোমার ভবিষ্যৎ নিয়ে আশঙ্কায় ছিলাম। ব্যাপার না পাশা, পৃথিবী তোমাকে মনে রাখবে। পৃথিবী তোমার মতো হতে চাইবে। এটাই বা কম কী?.. ........ ভালো থেকো ইব্রাহিম। ইতিহাসকে হত্যা করে কেউ জিততে পারে না, বরং নিজের করুণ পরিণতির পথ খুলে দেয়।’


পর্ব শেষ হওয়ার পর আরেক স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘ওরা তোমাকে নয়; ইতিহাসকে হত্যা করেছে...।’


কথা সাহিত্যিক ইশতিয়াক আহমেদ কবিতার ছন্দে লিখেছেন, ‘এই ভালোবাসা?/মন খারাপের কারন তোমার;/ওই, ইব্রাহীম পাশা...’


তরুণ সাংবাদিক ও ছড়াকার আবিদ আজম লিখেছেন, ‘খুব দ্রুত একটা মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হতে যাচ্ছে। প্রস্তুত, ইব্রাহীম পাশা?’


সাইফুদ্দিন আহমেদ নান্নু লিখেছেন, ‘ইব্রাহিম পাশা পারগালীকে হত্যা করলেন সুলতান সুলেমান। দীর্ঘদিনের বিশ্বাসী বন্ধু, পরামর্শক, ইব্রাহিমের প্রাণ গেল কেবল সন্দেহ আর ভুলবোঝার ফসল হিসেবে। বিশ্বস্ত বন্ধু, পরমর্শক হারালে প্রবল পরাক্রমশালীর জীবনও অন্ধকারে ডুবে যায়, ডুবতেই থাকবে। ইব্রাহীমদের অভাব ইব্রাহীমদের হারালেই টের পাওয়া যায়। ইব্রহীমরা একবার চলে গেলে আর আসে না। তোমার জন্য করুণা, কেবল করুণা রইল সুলতান সুলেমান’।


এছাড়া আরো অনেকেই বিভিন্নভাবে ইব্রাহীম পাশার মৃত্যুর বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। সিরিয়ালটির প্রবল জনপ্রিয়তাই এর কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫