ঢাকা, শুক্রবার,১৮ আগস্ট ২০১৭

অর্থনীতি

গ্রামীণ এলাকায় ১২৮টি দীর্ঘ সেতু নির্মাণ হবে

মাতুয়াইল, দনিয়া, শ্যামপুরের সড়ক উন্নয়ন

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

১০ জানুয়ারি ২০১৭,মঙ্গলবার, ১২:৪৭ | আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৪:১১


প্রিন্ট

দেশের ৯৪টি উপজেলায় ১২৮টি দীর্ঘ সেতু নির্মাণ করা হবে। এসব সেতুর মোট দৈর্ঘ্য হলো ২৬ হাজার ৭৭৪ মিটার। সরকারের নিজস্ব মোট ৩ হাজার ৯২৭ কোটি টাকা ব্যয় হবে। আগামী ২০২১ সালের জুনে এসবের নির্মাণ কাজ শেষ হবে। অন্যদিকে ঢাকা সিটি দক্ষিণের সাথে নতুন করে যুক্ত মাতুয়াইল, দনিয়া, শ্যামপুর ও সারুলিয়া এলাকার সড়ক ও অবকাঠামো উন্নয়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ মঙ্গলবার শেরেবাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় পল্লী জনপদের সেতু উন্নয়ন প্রকল্পটিসহ ৯টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল প্রকল্প অনুমোদনের বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান। অনুমোদিত ৯ প্রকল্পে ব্যয় হবে ৮ হাজার ৮৭৪ কোটি ১৬ লাখ টাকা। যার মধ্যে সরকারি অর্থায়ন হবে ৭ হাজার ৩২৯ কোটি ১৬ লাখ টাকা।

জানা যায়, এ পর্যন্ত গ্রামীণ এলাকার ৪ লাখ ৬৫ হাজার ৪১৩ মিটার ব্রীজ বা কালভার্ট নির্মাণের চাহিদা আছে। যার মধ্যে আজ পর্যন্ত ২ লাখ ৮৮ হাজার ৫৩৬ মিটার নির্মাণ হয়েছে। বাকি আছে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৮৭৭ মিটার। এই প্রকল্পের মাধ্যমে কিছু কাজ সম্পন্ন করা হবে। এখনো পর্যন্ত ১২৮টি সেতুর মধ্যে ৫৬টির সমীক্ষা হয়নি। সেগুলোর প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। এসব সেতু নির্মাণ ছাড়াও নদী শাসন ও এ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মাণের কার্যক্রম এই প্রকল্পে।

এছাড়া, নতুন করে ৮টি ইউনিয়ন ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে যুক্ত হয়েছে। এসব এলাকার সড়ক ও ড্রেনেজ অনুপযোগী। বর্ষাকালে ডুবে যায়। তাই সরকারি ৭৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এসব সংস্কার ও উন্নয়নের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, বন্দরনগরী চট্টগ্রামের ৩০ কোটি লিটার পানির চাহিদা মেটানোর জন্য বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় পানি সরবরাহ উন্নয়ন প্রকল্প সরকার অনুমোদন দিয়েছে। বর্তমানে ৫০ কোটি লিটার চাহিদার মাত্র ২০ কোটি লিটার মেটানো সম্ভব হচ্ছে। এ জন্য ব্যয় হবে ১ হাজার ৮৯০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। বিশ্বব্যাংক দেবে ১ হাজার ৪৯৪ কোটি ৯১ লাখ টাকা।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫