ঢাকা, বৃহস্পতিবার,৩০ মার্চ ২০১৭

উপমহাদেশ

দুরবস্থা জানিয়ে বিএসএফ জওয়ানের ভিডিও : তদন্তের নির্দেশ সরকারের

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১০ জানুয়ারি ২০১৭,মঙ্গলবার, ১১:৫৬


প্রিন্ট

সম্প্রতি ফেসবুক বা ট্যুইটারে কাশ্মীর সীমান্তে থাকা এক বিএসএফ জওয়ানের পোস্ট করে ভিডিও নিশ্চয় চোখে পড়েছে।

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) জওয়ানদের সমস্যা তুলে ধরে সম্প্রতি ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন এক জওয়ান। দেশের সেনা জওয়ানদের সমস্যার তথ্য সম্বলিত চার মিনিটের বেশি সময়ের তিনটি ভিডিও ভাইরাল হতে খুব বেশি সময় নেয়নি। তবে সেটি সরকারের নজরে এলে বিষয়টি নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

৪০ বছরের বিএসএফ জওয়ান টিবি যাদবের পোস্ট করা ভিডিওগুলোতে তিনি জানিয়েছিলেন যে, জম্মু-কাশ্মীরে পাকিস্তান সীমান্তে থাকা জওয়ানেরা প্রায়ই না খেয়ে থাকে। শুধু উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের দুর্নীতির কারণেই সীমান্তে থাকা জওয়ানেরা ঠিকমতো খেতে পাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন ২৯ ব্যাটালিয়নের জওয়ান যাদব।

তার অভিযোগ, প্রতিদিন সকালে জওয়ানদের প্রাতরাশ হিসেবে চা এবং পরোটা দেওয়া হয়। কোনও প্রকারের সবজি বা তরকারি দেওয়া হয় না। দুপুরের খাবারে রুটি এবং ডাল দেওয়া হয়। সেই ডাল তৈরি হয় হলুদ এবং লবণ দিয়ে। এই খাবার খেয়েই দিনে ১১ঘণ্টা দাঁড়িয়ে দেশরক্ষার কাজ করতে হয় তাদের। নিত্যদিন জওয়ানদের খালি পেট নিয়েই ঘুমাতে হয়।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, ভারত সরকারের পক্ষ থেকে সেনা জওয়ানদের জন্য ভালো খাবারের ব্যবস্থা করা হলেও তা চুরি করে নেয় বেশ কিছু প্রবীণ সরকারি কর্মকর্তা। এই ধরনের স্পর্শকাতর বিষয় ফেসবুকে পোস্ট করার জন্য তার প্রাণ সংশয় হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন টিবি যাদব। একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে বিষয়টি নিয়ে তদন্তের আর্জি জানিয়েছিলেন তিনি।

দেশের অন্যতম স্পর্শকাতর এলাকা পাকিস্তান সীমান্তে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা জওয়ানদের এহেন অবস্থা দেখে নড়ে বসেছে কেন্দ্র সরকার। সোমবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ট্যুইট করে লিখেছেন, ‘আমি বিএসএফ জওয়ানের দুরবস্থার ভিডিও দেখেছি। বিষয়টির জন্য অবিলম্বে ব্যবস্থা নিয়ে রিপোর্ট নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি স্বরাষ্ট্র সচিবকে।’

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫