ঢাকা, বুধবার,২৫ জানুয়ারি ২০১৭

কম্পিউটার ও আইটি

মার্কিন চিপ নির্মাতাদের জন্য হুমকি হতে পারে চীনা বিনিয়োগ

আহমেদ ইফতেখার

০৮ জানুয়ারি ২০১৭,রবিবার, ২০:০৭


প্রিন্ট

হোয়াইট হাউজ প্রকাশিত এক প্রতিবেদন সতর্ক করে জানিয়েছে, মার্কিন সেমিকন্ডাক্টর শিল্পে চীনের প্রতিষ্ঠানগুলোর বিনিয়োগ জাতীয় নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলবে। বারাক ওবামার প্রধান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা জন হোল্ডরন এ প্রতিবেদন তৈরি করেছেন।
সেমিকন্ডাক্টর খাত-সংক্রান্ত এই মূল্যায়ন প্রতিবেদন চূড়ান্ত করেছে ওবামা প্রশাসন। এতে স্থানীয় চিপ নির্মাতাদের জন্য চীনা বিনিয়োগকে হুমকি বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এতে বলা হয়, চীনের লক্ষ্য সেমিকন্ডাক্টর নকশা ও উৎপাদন খাতে শীর্ষ অবস্থান অর্জন। এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে আগামী ১০ বছরের মধ্যে ১৫ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে চীনভিত্তিক নির্মাতারা। জন হোল্ডরন বলেন, চীনের সেমিকন্ডাক্টর কোম্পানিগুলো যে নীতি অনুসরণের মাধ্যমে ব্যবসা সম্প্রসারণ করছে, তা ইতিবাচক নয়। উদ্ভাবন বাধাগ্রস্ত ও বাজার দখলের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা ব্যাহত করবে স্থানীয় কোম্পানিগুলোয় চীনের সরাসরি বিনিয়োগ। জাতীয় নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলে শিল্প সুরক্ষা জোরদারে সুপারিশমালা রাখা হয়েছে এই প্রতিবেদনে। চীন বিশ্বব্যাপী গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে ঠিকই কিন্তু এ অর্জনের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে পারেনি। কিছু ক্ষেত্রে এ অর্জনের বিরুদ্ধে কাজ করছে দেশটি। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী উন্মুক্ত অর্থনীতির সুফল নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। মার্কিন সরকার সেমিকন্ডাক্টর খাতকে সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ শিল্পের একটি হিসেবে বিবেচনা করে। এ খাতে প্রবেশাধিকার পেলে চীন জাতীয় নিরাপত্তা সম্পর্কিত যেকোনো কিছুতে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় সমর্থ হবে।
হোয়াইট হাউজের সুপারিশমালায় কমিটি অন ফরেন ইনভেস্টমেন্ট ইন দ্য ইউএসের (সিএফআইইউএস) কঠোর অবস্থানের উল্লেখ করা হয়েছে। জাতীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট মার্কিন সম্পদের বিদেশী অধিগ্রহণ তদারক করে থাকে এ কমিটি। সেমিকন্ডাক্টর বাজারে আধিপত্য বিস্তারে চীনের চেষ্টা নিয়ে সিএফআইইউএসকে দিকনির্দেশনা দেয়া হয়েছে প্রতিবেদনে।
মার্কিন কোম্পানিগুলোকে চীনে ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে নানা ধরনের জটিলতা অতিক্রম করতে হচ্ছে। বিশেষত ট্যাক্স ও অ্যান্টি-ট্রাস্ট সংশ্লিষ্ট আইনি জটিলতায় পড়তে হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রযুক্তি কোম্পানি অ্যাপল, মাইক্রোসফট, ফেসবুক ও ইন্টেলসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানকে। চীনে সরকারি কার্যক্রমে ব্যবহারের জন্য এরই মধ্যে মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য এড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর কয়েক দিনের মধ্যেই ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। এ মুহূর্তে ওবামা প্রশাসনের এমন সতর্কতা প্রতিবেদন চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে নতুন উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পারে। কারণ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ের পর থেকেই চীন সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করে আসছেন ট্রাম্প।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন
চেয়ারম্যান, এমসি ও প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : শিব্বির মাহমুদ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫